পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/২৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বৈষ্ণবু-চরিতাখ্যান – কৃষ্ণদাসের ভক্তমাল—১৭শ শতাব্দী। S్చరిలి কৃষ্ণ যার এক নাথ তার কোথা বিস্ত্র। বিয়ের মস্তকে পাদ দিয়া রহে মগ্ন । ভোজন করিতে ডাকে শাশুড়ী ননদে । কিছু নাহি কহে মাত্র ফুকরিয়া কাদে ॥ পড়শীর নারীগণ আসিয়া মিলয় । সবে কহে মাম্বেরে না দেখিয়া কাদয় ॥ তুষিয়া কহয়ে ভাত খাও আসি মাতা । কেহ নাহি জানে তার মনের যে ব্যথা ॥ এই মত দুই তিন উপবাস গেল। অনেক সাধিল কিছু আহার না কৈল । তবে তার শাশুড়ী ননদ কিছু কহে। কি তোমার ইচ্ছা কহ তাই করি নহে ॥ তবে ধীরে ধীরে কহে যদি খাইতে কহ । এক মুষ্টি চালু একটা পাত্রে দেই দেহ ॥ জল এই দাসী মোর যাইয়া আনিব। স্বপাৰ । আপন হস্তেত পাক করিয়া খাইব ॥ নহিলে না খাব প্রাণ তেজিব নিশ্চয়। প্রাণপণ করি যাতে যাতে করি ভয় ॥ এত শুনি নারীগণ হাসিয়া কহয় । কেন গো ইহারা কিছু হাড়ী ডোম নয় ॥ অন্ন নাহি খাবে ঘর করিবে কেমনে। এত বড় তষ্টি (১) দেখি অসঙ্গত কেনে ॥ কেহ কহে আগে উনি বৈষ্ণবের বী। না খাবে শাক্তের অন্ন হেনই বা বুঝি। ইহা শুনি হাসি নিন্দ করে নারীগুলা । শাশুড়ী ননদবৰ্গ তিরস্কার কৈলা ॥ তষ্টি কৈলা প্রাণত্যাগ সেহত না ভাল। হাড়ি চালু আদি আনি যথাযোগ্য দিল । স্বপাক করিয়া অন্ন কৃষ্ণে নিবেদিয়া । খাইল কিঞ্চিৎ প্রাণধারণ লাগিয়া ॥ প্রতিদিন এই মত কত দিন যায় বৈষ্ণব-মন্ত্ৰ লইতে স্বামীরে কহয় । (১) জেদ। 5 to