পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৩৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


〉Rbペ বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় । মুনির বচনে শক্রজিতের তনয়ে। দেখে দূর হন্তে ধায় আসে দৈত্যচয়ে । সবাহারে (১) হৈল রাগ সে পাতালকেতু । গৰ্জ্জিতে আইসে যজ্ঞ-বিনাশের হেতু ॥ দেখি আগবাড়ি গিয়া রাজার কুমার। নৈল তীক্ষ খৰ্গ অৰ্দ্ধচন্দ্রের আকার ॥ আকৰ্ণ পূরিয়া বাণ প্রহার করিল। পাকাশয়ে দৈত্যের অঙ্গত প্রবেশিল ॥ বিন্দিয়া পাতালকেতু শরের প্রহারে। বড় চোট পায় দৈত্য পলাইল দূরে ৷ বিমুখে পলায় নাছি চাহে উলটিয়া । পাতালকেতুক কোপে নৈ যায় খেদিয়া ॥ জল স্থল দরী গিরি গহন কাননে। তথাত পলায়ে দৈত্য ভয়ে পায়া মনে ॥ সেহি খানে তখনে কুমার যায়ে ধায়া। কুবলয় নামে দিব্য তুরঙ্গে চড়িয়া ॥ ব্যাকুল হইল দৈত্য লুকাইতে নারে। দেখিলেক গৰ্ত্ত এক পাতাল-ভিতরে ॥ আর বার আসে দৈত্য গৰ্ত্তেত পশিল । সেহি সুলঙ্গের (২) পথে পাতাল চলিল ॥ অসম-সাহস ঋতধ্বজ যুবরাজ। তুরঙ্গ সহিতে চলি গেল গৰ্ত্ত-মাঝ ॥ দৈত্যের উদ্দেশ্যে কৈল পাতালে প্রবেশ । কোথা গেল দৈত্য সে না পাইল উদ্দেশ ॥ দেখে এক গোটা পুরী অতি মনোরম। সৰ্ব্বগুণ-যুক্ত সেহি অমরাবতী সম । কনক-রচিত নিরমিত প্রতি ঘর । হেমময় কপাট সে হুয়ারে দুয়ার ॥ ফটক রচিত সে পতাকা নিরমল। ইন্দ্রনীল-বিরচিত দুয়ার সকল । (১) সবাহারে = সকলকে । (২) সুড়ঙ্গ ।