পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৩৪১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


যদুনন্দন দাসের গোবিন্দ-লীলামৃত। শ্ৰীমতী রাধিকার বেশ-বিন্যাস ।

  • * * * রত্ন কাকই লঞা । ললিতা করয় বেশ কেশ বিনাইয়া ॥ ধুপ ধুনা দিয়া সেই কেশ শুকাইল । স্নিগ্ধ মুকুঞ্চিত কেশ সুগন্ধিত কৈল ॥ সহজে মুগন্ধী কেশ আগুরের গন্ধ । তাহাতে দিলেন আনি অনেক সুগন্ধ ॥

বেণী বিনাইয়া দিল শঙ্খচুড়-মণি । কালসৰ্প ফণে যেন শোভে দিনমণি ॥ বকুলের দিব্য মালা মুকুতার মালা । তাতে দিল যেন ভেল ত্রিবেণীর মেলা ॥ সমষ্টি করিঞা পুনঃ স্বর্ণ-স্বত্র দিঞ। মুলেতে বান্ধিল পট্ট-জাদ তাতে দিঞ ॥ স্বাক্ষ রক্ত বস্ত্র ধনী ভিতরে পরিল। তাহার উপরে নীল বসন ধরিল ॥ ভ্রমরের বর্ণ বস্ত্র অতি স্থঙ্কতর। মেঘাম্বর নাম তার অতি মনোহর । আশ্চৰ্য্য কোচার শেতা নাহিক উপমা । যে শোভা দেখিতে লাজ পায় ব্ৰজ-রামা ॥ সম্মুষ্টি করিয়া মধ্যে স্বর্ণ-স্বত্র দিয়া। রক্ত পট্ট-জাদ দিল মুছাদ করিয়া ॥ স্বর্ণ-সূত্রে করি মণি-কিঙ্কিণীর জাল । রত্ন-বন্ধ জাল তাতে শোভয়ে বিশাল ॥ নিতম্ব-দেশেতে হার করিল যোজনা। যে শোভ হইল তার নাহিক উপমা ॥ চন্দন কপূর আর অগুরু কাশ্মীর । পঙ্ক করি লঞা আইল বিশাখা সুধীর । পৃষ্ঠে বক্ষে বাছ আর কুচযুগ-দেশে। লেপন করিল সেই পরম ছক্কিৰে ৷ .