পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৫৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় । গর্ভে যখন যোগী তখন ভূমে পড়ে খেলেম মাটী ৷ ওরে ধাত্রীতে কেটেছে নাড়ী মায়ার বেড়ি কিসে কাটি ॥ ( ૨( ) রমণী-বচনে মৃধা সুধা নয় সে বিষের বাটী। আগে ইচ্ছাস্বখে পান করে বিষের জালায় ছটফটী ॥ আনন্দে রামপ্রসাদ বলে আদিপুরুষের আদি মেয়েট। ও মা যাহা ইচ্ছ। তাহাই কর ম৷ তুমি গো পাষাণের বেটী । ( २७ ) মা মা বলে আর ডাকবো না । ওমা দিয়েছ দিতেছ কতই যন্ত্রণ ॥ ছিলেম গৃহবাসী বানালে সন্ন্যাসী আর কি ক্ষমতা রাখ এলোকেশী । (না হয়) ঘরে ঘরে যাব ভিক্ষা মেগে খাব মা বলে আর কোলে যাব না ৷ ডাকি বারে বারে মা মা বলিয়ে মা কি রয়েছ চক্ষু কৰ্ণ খেয়ে । মা বিদ্যমানে এ দুঃখ সন্তানে মা ম’লে কি আর ছেলে বঁাচে ন ॥ ভণে রামপ্রসাদ মায়ের কি এক সূত্র মা হয়ে হলি মা সন্তানের শত্র । দিবা নিশি ভাবি আর কি করিবি দিবি দিবি পুনঃ কঠোর যন্ত্রণ ॥ ( २१ ) সামাল সামাল ডুবলে তরী। আমার মনরে ভোলা, গেল বেলী ভজলে না হরমুন্দরী। প্রবঞ্চনার বিকিকিনি করে ভরা কৈলে ভারী। সারা দিন কাটালে ঘাটে বসে সন্ধ্যাবেল ধরলে পাড়ি ॥