পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৬৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ゞ(rse কৃষ্ণ । রাধিকা । কৃষ্ণ । বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় । ত্রিভুবন চেয়ে, দেখিলাম চিন্তিয়ে, সেই ত তাহার রূপের তুলনা ; মনে চাদের তুলনা যখন দিতে চায়, তখন অম্‌নি নয়ন,—সুবিবেচক নয়ন,— গোরাচাদ পানে চায়, চাদ পানে চায় ; দেখে, চাদে যে কলঙ্ক আছে, ছি ! ছি ! চাদ কি গোরাচাদের কাছে ?— অম্নি বলে নয়নে,— ওরে অবোধ মন, গোরাচাদের কাছে, ছি ! ছি! চাদের তুলনা তুলনা তুলোনা। সে রূপ র’য়ে র’য়ে পড়ে মনে, পাসরিতে নারি তাকে ॥ প্রিয়ে ! স্বপ্নে যে রূপ দেখেছ, সে আমারই রূপ। নাথ ! তোমার এ ভুবনমোহন শুামরূপ গোপন ক’রে গৌররূপ ধারণের কারণ কি ? (মুরে) দর্পণাস্তে হেরি প্রিয়ে, আপন-মাধুরী ; আস্বদিতে সাধ করি, আস্বদিতে নারি। তোমার স্বরূপ বিনে নহে আস্বাদন ; এই হেতু হ’তে হ’বে গৌরবরণ। প্রিয়ে! জীব নিস্তারিতে নদিয়া-পুরীতে, হ’তে হবে গৌরবরণ। শুন, কই স্বরূপে, তব ঐ স্বরূপে, স্বরূপে সে রূপ করিব ধারণ । নিয়ে মম নিত্য পরিকর গ্রামে, শচীগর্ভে, পিতা পুরন্দর-ধামে ; জনমিব আমি, প্রিয়ে তব ধামে, নিজ শু্যামধামে করি আবরণ। প্রেমময়ি! তব প্রেমের গৌরব, তাহে যে মাধুৰ্য্য কর অনুভব ; সেই মাধুৰ্য্যাস্বাদনে, প্রিয়ে, তব মনে হয় প্রতিক্ষণে যে সুখ-উদ্ভব ; লুব্ধ মন মম জানিতে সে ভাবে, ভাবিত হইবে তোমার স্বভাবে ;