পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৭২০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৬৬২ বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় । বিধেয় কহিয়া জ্ঞান জ্ঞেয়মান হৈলে । অজ্ঞানতা যায় তার গুরু কৃপা কৈলে । পরমার্থ থাকে মাত্র এ সব ভাব-যোগে । পাপময় এই দেহ পুণ্য করি ভোগে ৷ যেই বীজে জন্মে জীব সেই বীজে গত। কোথা থাকে সেই বীজ কে জানে তার তত্ত্ব ॥ জগত পালন করে হৈয়া এক রূপ। এক রূপে হয় সেই মহারস-কূপ । জীব আত্মার সঙ্গে সেই হয় চতুৰ্ব্বহ। এই আত্ম-বোধ-তত্ত্ব যদি জানে কেহ ॥ সেই উপদেশ করে গুরু-শক্তি পায়্যা। আমিত কহিল এহ! লাজ-বীজ থাঞী। এই যে সহজ-বস্তু সহজ তার গতি। সতত আছএ সেই তিন দ্বারে স্থিতি ॥ বহিঃ প্রবেশ আর গতীয়াত-দ্বারে । নারী-পুরুষরূপে সতত বিহরে ॥ এথে কাম কামিনীর যদি হয় সঙ্গ । নিজ-মুখ-বাঞ্ছা দেহে হয় এই অঙ্গ ॥ (১) ইহাতে রময়ে যদি বীজাঙ্কুর কাম। তাহাতে বাঢ়য়ে বৃক্ষ হয় বলবান ॥ তৃতীয় শাখায় বৃক্ষ হয় প্রফুল্লিত। পল্লব ষষ্ঠম তাথে হয় সুনিশ্চিত ॥ দ্বিতীয় পল্লব-মধ্যে পুষ্প নিকশয়। পঞ্চদশ অক্ষর নামে মধু তাথে হয়। দুঃখ আর মুখ দুই তাথে ফলাফল । বুঝিবে রসিক ভক্ত অন্তের বিরল। সেই ফল-ভক্ষণেতে দগ্ধ হয় দেহ। তাথে বোধ নাহি হয় মত্ত রহে সেহ ॥ ইশ বিমশ দুই ফলে হয় রস । সেই রস পান করি জীব হয় বশ ॥ (১) সহজিয়াদের ধৰ্ম্ম-সাধনার প্রথম সোপানে স্ত্রীপুরুষের অবাধমিলন স্থচিত হইতেছে।