পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৭৮৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৭২৬ বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় । যাহা হউক ইহার পরে যে উভয়ের ঐক্য হয় ইহার পরামর্শ স্থির করা গেল। কিন্তু সে কালীন বেকেট ইংগ্লিণ্ডে পুনরাগমন করিয়া অনেক ২ অনাচার করিল তাহাতে সে সকল আয়োজন ব্যর্থ হইল। পরে রাজার নিকট যে ব্যক্তি মাপ পাইয়াছিল এমন ব্যক্তির ন্তায় নম্র হইয় স্বধৰ্ম্মাধ্যক্ষাধিকারেতে না যাইয়া ঐ বেকেট অতি সমারোহ করিয়া পাপার দ্যায় সসজ্জ হইয়া কেন্ত দেশ দিয়া গমন করিল। এবং সেীত্বার্ক নগরের নিকটে উপস্থিত হইবা মাত্ৰেতে তাবৎ ধৰ্ম্মপক্ষপাতি বর্গের এবং জনপদীয় বর্গের এবং ছোট বড় তাবৎ লোক আসিয়া সাক্ষাৎ করিয়৷ অনেক প্রকার আনন্দ সংগীতের দ্বারা তাহার স্তুতি করিল। পরে আত্মপরাক্রম ও লোকের মন যে তাহার প্রতি তাহা জ্ঞাত হইয়া যে যে লোক পূৰ্ব্বে র্তাহার প্রতিবাদী হইয়াছিল ক্রমেতে তাহার দের প্রতিফল দিতে আরম্ভ করিল। প্রথমতঃ য়র্ক নগরের মহাধৰ্ম্মাধ্যক্ষ যিনি বেকেটের অসাক্ষাৎকারে রাজা হেনরির জ্যেষ্ঠ পুত্রকে রাজ্যাভিষিক্ত করিয়াছিলেন তাহাকে কৰ্ম্মচু্যত করিতে আজ্ঞা দিলেন। দ্বিতীয়তঃ লণ্ডন ও সালিস্বরী নগরের ধৰ্ম্মাধ্যক্ষের দিগকে ধৰ্ম্মপক্ষপাতির দের মধ্য হইতে বাহির করিয়া দিলেন। তাহার দের মধ্যে এক জনকে তাহার বিরুদ্ধে কথা কহন রূপ অপরাধে এবং এক জনকে তাহার ঘোড়ার লেজ কাটার অপরাধে বহিস্কৃত করিলেন। পরে যে কালে রাজা হেনরি নৰ্ম্মণ দেশে বাস করিতেছিলেন সেই কালে প্রধান আচাৰ্য্য বেকেটুও তদ্রুপে জয়যুক্ত হইয়া বড় সমারোহের সহিত ঐ রাজ্য দিয়া জাক করিয়া গমন করিতেছিল। এই সংবাদ পাইয়া ঐ ব্যক্তির জাকজমক দেখিয়া তাহাকে তুচ্ছত্তান করিয়া ক্রোধান্বিত হইলেন এবং যখন ঐ সকল কাৰ্য্যচু্যত এবং দূরীকৃত আচার্যেরা তাহার দের নিবেদন লইয়া উপস্থিত হইল তখন র্তাহার অসংখ্য ক্রোধ হইল। এবং হেনরি যাহাকে যাহাকে অত্যন্ত হীনাবস্থা হইতে অত্যুচ্চ পদ বিশিষ্ট করিয়াছিলেন সে ব্যক্তি যাবজ্জীবন হেনরিকে ত্যক্ত করিয়া নিত্য তচ্ছাসনোল্লঙ্ঘক হইল যে ঐ মহাধৰ্ম্মচাৰ্য্য বেকেট্‌ তাহার প্রতি হেনরির অত্যন্ত ক্রোধ প্রজ্বলিত হইল। পরে য়র্ক নগরের মহাধৰ্ম্মাধ্যক্ষ রাজ হেনরির নিকট ইহা জানাইল যে যাবৎ বেকেটু বাচিয়া থাকে তাবৎ রাজ্যে কোন প্রকারে ঐক্য কিম্বা মঙ্গল হইবার কোন বিষয় হইবে না। রাজা এই সকল শুনিয়া ভাব্যভাবনা দ্বারা অতিশয় চিন্তিত হইয়া কহিলেন যে বুঝিলাম কোন প্রাণী আমার সহায় নয়। অতএব এ ব্যক্তির ভণ্ড তপস্যা দ্বারা এতকাল দুঃখ পাইতেছি। এই কথা শুনিয়া যাবৎ সভ্যস্থ লোকের উদ্বিগ্ন হইয়া রাজার মনোগত দুঃখ নিবারণার্থে এবং তাহার বাঞ্ছা সফল