পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৮১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


›°ል®8 বেদের কথা ভাষায় নিষিদ্ধ। সাকার উপাসন । দ্বারীর আনুকুল্য ভিন্ন রাজদর্শন অসম্ভব। বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় । যাহার সত্তার অবলম্বন করিয়া জগতের নির্বাহ চলিতেছে সকলের উপাস্ত হয়েন। এ উদাহরণে যদ্যপি ব্ৰহ্ম শব্দকে সকলের প্রথমে দেখিতেছি তত্ৰাপি সকলের শেষে হয়েন এই যে ক্রিয়া শব্দ তাহার সহিত ব্ৰহ্ম শব্দের অন্বয় হইতেছে। আর মধ্যেতে গান করেন যে ক্রিয়া শব্দ আছে তাহার অন্বয় বেদ শব্দের সহিত আর চলিতেছে এ ক্রিয়া শব্দের সহিত নিৰ্ব্বাহ শব্দের অন্বয় হয়। অর্থাৎ করিয়া যেখানে যেখানে বিবরণ আছে সেই বিবরণকে পর পূর্ব পদের সহিত অন্বিত যেন না করেন এই অনুসারে অনুষ্ঠান করিলে অর্থবোধ হইবাতে বিলম্ব হইবেক না। আর যাহাদের ব্যুৎপত্তি কিঞ্চিতো নাই এবং ব্যুৎপন্ন লোকের সহিত সহবাস নাই র্তাহারা পণ্ডিত ব্যক্তির সহায়তাতে অর্থবোধ কিঞ্চিৎ কাল করিলে পশ্চাৎ স্বয়ং অর্থবোধে সমর্থ হইবেন । বস্তুতঃ মনোযোগ আবশ্যক হয়। এই বেদান্তের বিশেষ জ্ঞানের নিমিত্ত অনেক বর্ষ উত্তম পণ্ডিতেরা শ্রম করিতেছেন। যদি দুই তিন মাস শ্রম করিলে এ শাস্ত্রের এক প্রকার অর্থ বোধ হইতে পারে তবে অনেক সুলভ জানিয়া ইহাতে চিত্ত নিবেশ করা উচিত হয়। কেহো কেহো এ শাস্ত্রে প্রবৃত্তি হইবার উৎসাহের ভঙ্গ নিমিত্ত কছেন যে বেদের বিবরণ ভাষায় করাতে এবং শুনাতে পাপ আছে এবং শুন্দ্রের এ ভাষা শুনিলে পাতক হয়। র্তাহাদিগ্যে জিজ্ঞাসা কৰ্ত্তব্য যে যখন তাহার শ্রুতি স্মৃতি জৈমিনিস্থত্র গীতা পুরাণ ইত্যাদি শাস্ত্র ছাত্রকে পাঠ করান তখন ভাষাতে তাহার বিবরণ করিয়া থাকেন কিনা আর ছাত্রের সেই বিবরণকে শুনেন কি না আর মহাভারত যাহাকে পঞ্চম বেদ আর সাক্ষাৎ বেদার্থকহ যায় তাহার শ্লোক সকল শূদ্রের নিকট পাঠ করেন কি ন৷ এবং তাহার অর্থ শূদ্রকে বুঝান কি না শূদ্রেরাও সেই বেদার্থের অর্থ এবং ইতিহাস পরস্পর আলাপেতে কহিয়া থাকেন কি না আর শ্রাদ্ধাদিতে শূদ্র নিকটে ঐ সকল উচ্চারণ করেন কি না। যদি এইরূপ সৰ্ব্বদ করিয়া থাকেন তবে বেদান্তের এ অর্থের বিবরণ ভাষাতে করিবাতে দোষের উল্লেখ কিরূপে করিতে পারেন। সুবোধ লোক সত্যশাস্ত্র আর কাল্পনিক পথ ইহার বিবেচনা অবশু করিতে পারিবেন। কেহ কেহ কছেন ব্রহ্ম প্রাপ্তি যেমন রাজপ্রাপ্তি হয়। সেই রাজপ্রাপ্তি র্তাহার দ্বারীর উপাসনা ব্যতিরেকে হইতে পারে না সেইরূপ রূপগুণ বিশিষ্টের উপাসনা বিনা ব্ৰহ্মপ্রাপ্তি হইবেক না। যদ্যপিও এ বাক্য উত্তরযোগ্য নহে তথাপি লোকের সন্দেহ দুৱ করিবার নিমিত্ত লিখিতেছি। যে ব্যক্তি রাজপ্রাপ্তি নিমিত্ত দ্বারীর উপাসনা করে সে দ্বারীকে সাক্ষাৎ রাজা কছে না এখানে তাহার বিপরীত দেখিতেছি যেরূপ গুণবিশিষ্টকে