পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৮১৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৭৬০ . বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় । উপদেশভেদান্নেতি চেন্ন উভয়স্মিন্নপ্যবিরোধাৎ । ২৭ এক উপদেশেতে ব্রহ্মের পাদের স্থিতি স্বর্গে পাওয়া যায় দ্বিতীয় উপদেশে স্বর্গের উপর পাদের স্থিতি বুঝায় অতএব এই উপদেশ ভেদে ব্রহ্মের পদের ঐক্যতা না হয় এমত নহে। যদ্যপিও আধারে ও অবধিতে ভেদ হয় কিন্তু উভয় স্থলে উপরে স্থিতি উভয় পাদের কথন আছে অতএব অবিরোধেতে দুইয়ের ঐক্য হইল। ব্ৰহ্মকে যখন বিরাটরূপে স্থল জগৎস্বরূপ করিয়া বর্ণন করেন তখন জগতের এক এক দেশকে ব্রহ্মের হস্ত পদাদি করিয়া কহেন বস্তুত তাহার হস্ত পাদ আছে এমত তাৎপৰ্য্য না হয়। ২৭ ॥ আমি প্রাণ প্রজ্ঞাত্মা হই ইত্যাদি শ্রুতির দ্বারা প্রাণবায়ু উপাস্ত হয় কিম্বা জীব উপাস্ত হয় এমত নহে। প্রাণস্তথানুগমাৎ । ২৮ প্রাণশব্দের এখানে ব্ৰহ্ম কথনের অনুগম অর্থাৎ উপলব্ধি হইতেছে অতএব প্রাণশব্দ এই স্থলে ব্রহ্মবাচক কারণ এই যে সেই প্রাণকে পরশ্ৰুতিতে অমৃত অর্থাৎ ব্রহ্মরূপ করিয়া কহিয়াছেন। ২৮ ন বক্তরাষ্মোপদেশাদিতি চেৎ অধ্যাত্মভূমী হস্মিন। ২৯ ইন্দ্র আপনার উপাসনার উপদেশ করেন অতএব বক্তার অর্থাৎ ইন্দ্রের প্রাণ উপাস্ত হয় এমত নয় যেহেতু এই প্রাণ বাক্যে বেদে কহিতেছেন যে প্রাণ তুমি প্রাণ সকল ভূত এইরূপ অধ্যাত্ম সম্বন্ধের বাহুল্য আছে বস্তুত আত্মাকে ব্রহ্মের সহিত ঐক্য জ্ঞানের দ্বারা ব্ৰহ্মাভিমানী হইয়া ইন্দ্র আপনার প্রাণের উপাসনার নিমিত্ত কহিয়াছেন। ২৯। শাস্ত্র দৃষ্ট্য তুপদেশে বামদেববৎ। ৩০। আমার উপাসনা করহ এই বাক্য আমি ব্রহ্ম হই এমত শাস্ত্রদৃষ্টিতে ইন্দ্ৰ কহিয়াছেন স্বতন্ত্ররূপে আপনাকে উপাস্ত করিয়া কহেন নাই যেমত বামদেব আপনাকে ব্ৰহ্মাভিমান করিয়া আমি মনু হইয়াছি আমি সূৰ্য্য হইয়াছি এই মত বাক্য সকল কহিয়াছেন । ৩০ । জীবমুখ্যপ্রাণলিঙ্গান্নেতি চেন্নোপাসা ত্রৈবিধাদাশ্রিতত্বাদিহ তদযোগাৎ। ৩১ জীব আর মুখ্য প্রাণের পৃথক্ কখন বেদে দেখিতেছি অতএব প্রাণশব্দ এখানে ব্রহ্মপর না হয় এমত নয় । উভয় শব্দ ব্রহ্ম প্রতিপাদক এস্থলে হয় যেহেতু এরূপ জীব আর মুখ্য প্রাণ এবং ব্রহ্মের পৃথকৃ পৃথক্ উপাসনা হইলে তিন প্রকার উপাসনার আপত্তি উপস্থিত হয় তিন প্রকার উপাসনা অগত্য অঙ্গীকার করিতে হইল এমত কহিতে পারিবে নাই যেহেতু জীব আর মুখ্য প্রাণ এই দুই । অধ্যাস রূপে ব্রহ্মের আশ্রিত হয়েন আর সেই ব্রহ্মের ধৰ্ম্মের সংযোগ রাখেন যেমত রজ্জকে আশ্রয় করিয়া ভ্রমরূপ সর্প পৃথক্ উপলব্ধি হইয়াও রজুর আশ্রিত হয় আর রজ্জর ধৰ্ম্মও রাখে অর্থাৎ রজ্জ্ব না থাকিলে সে সপের উপলব্ধি আর থাকে না। এক বস্তুতে অন্ত বস্তুর জ্ঞান হওয়া অধ্যাস কহেন। ৩১ ॥ ইতি প্রথমাধ্যায়ে প্রথমঃ পাদঃ ।