পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৮৫২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


g »ፃእS8 উত্তর।

  • *

의 1 উত্তর । 1 উত্তর । 3 || উত্তর । 2 | উত্তর। 2 || উত্তর। বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় । তথাপি কিছু বিশেষ আছে যদ্বারা হিন্দু মুসলমান চিনা যায়, অর্থাৎ মুসলমানেরা খিদমতগার অথবা মোগলদিগের ছায় পাগড়ি মাতায় দেয়, হিন্দুরা কাবার সঙ্গে পাতলা শোলার ঠাটের উপর চোনটি করা বান্ধা পাগড়ি পরে, ও যোড়ার সঙ্গে খিড়কিদার পাগড়ি ব্যবহার করে। আমি দেখিতে পাই যে এ দেশীয় অনেক মোসলমান ধুতি চাদর ও মেরজাই ব্যবহার করে। বটে, কিন্তু প্রায় সকল মুসলমানে তাহার সঙ্গে একটা টুপি পরে ; কিন্তু হিন্দুরা তাহ প্রায় পরে না, এবং মুসলমানদের কবি চাপকান প্রভৃতির বাদিগে কাটা বা খোলা থাকে, কিন্তু হিন্দুদিগের ডাইন দিকে । তোমাদের স্ত্রীলোকেরা কিমত পোষাক করে ? সধবা ও অবিবাহিতা স্ত্রীরা শাড়ি পরে ও অলঙ্কার গায় দেয় ; বিধবা কেবল এক ভুনি পরে ; অলঙ্কার পরে না। আমি যে কোন ২ স্ত্রীলোককে র্কাচলি পরিতে ও চাদর গায় দিতে দেখিয়াছি। তাহারা তবে মুসলমান কিম্বা খোট্টাহিন্দু হইবে। মুসলমান স্ত্রীলোকেরা পাজামা ও জুতাও ব্যবহার করে, এ দেশীয় হিন্দুদের মধ্যে কেবল বেঙ্গার ইচ্ছানুসারে উক্তরূপ পোষাক পরিয়া থাকে। অনেক স্ত্রীলোককে মাতায় রাঙ্গা গুড়া দিতে দেখিতে পাই ; ইহার ভাব কি ? সে সধবার চিহ্ন, সধবাকে অবশু সি তায় সিন্দুর দিতে ও অলঙ্কার পরিতে হয়, অবিবাহিত স্ত্রী কেবল কপালে সিন্দুর দেয় এবং বিবাহিতা স্ত্রী কপালে ও সি তায় সিন্দুর দেয়। কিন্তু বিধবারা কখন সিন্দুর ব্যবহার করে না। বেণ্ডার অবিবাহিতা স্ত্রীর স্থায় সিন্দুর ব্যবহার করে। মফসলে কি হিন্দু কি মোসলমান প্রায় একই রূপ বেশ করে ? নীচ মুসলমান ও হিন্দুদিগের পোষাক প্রায় একরূপ—অর্থাৎ উভয়েই ধুতি চাদর ব্যবহার করে। তবে তাহারদিগকে কেমন করিয়া প্রভেদ কর ? দুই প্রকারে। হিন্দু ব্রাহ্মণ হইলে পৈতা ধারণ করে এবং শূদ্র হইলে কাষ্ঠের মালা পরে, কিন্তু মুসলমানদের এ সকল থাকে না, অধিকন্তু মুসলমানরা প্রায় দাড়ি রাখে ও মাত