পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৮৫৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


У be o o বিলাসের মধ্যে ভগবানের দয়া । 事評5亨1 বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় । অনুরাগ উৎপাদন করিয়া দিল। কেবল নারদের এই উপাখ্যানের সঙ্গে আমার একটী বিষয়ের মিল হয় না। তিনি প্রথমে ঋষিদিগের মুখে হরিগুণানুবাদ শ্রবণ করিয়া হৃদয়ে শ্রদ্ধাভক্তি লাভ করিয়াছিলেন, পরে র্তাহীদের নিকটে ব্ৰহ্মজ্ঞানের অনেক উপদেশ পাইয়াছিলেন। আমি কিন্তু প্রথমে কাহারও মুখে হরিগুণানুবাদ শ্রবণ করিয়া হৃদয়ে শ্রদ্ধা ভক্তি লাভ করিবার কোন সুযোগই প্রাপ্ত হই নাই, এবং কৃপা করিয়া কেহই আমাকে ব্ৰহ্মতত্ত্বে উপদেশ দেন নাই। আমার চারিদিকে কেবল বিলাস ও আমোদের অনুকূল বায়ু অহৰ্নিশি প্রবাহিত হইতেছিল। এত প্রতিকূল অবস্থাতেও ঈশ্বর আপনি দয়া করিয়া আমার মনে বৈরাগ্য দিলেন ও আমার সংসারাসক্তি কাড়িয়া লইলেন এবং তাহার পরে সেই আনন্দময় স্বীয় আনন্দের ধারা আমার মনে বর্ষণ করিয়া আমাকে নূতন জীবন প্রদান করিলেন। তাহার এ কৃপার কোথায়ও তুলনা হয় না। তিনিই আমার গুরু, তিনিই আমার পিতা । তৃতীয় পরিচ্ছেদ । দিদিমার মৃত্যুর পর একদিন আমার বৈঠকখানায় বসিয়া আমি সকলকে বলিলাম যে আজি আমি কল্পতরু হইলাম। আমার নিকটে আমার দিবার উপযুক্ত যে যাহা কিছু চাহিবে তাহাকে আমি তাঁহাই দিব। আমার নিকট আর কেহ কিছু চাহিলেন না, কেবল আমার জ্যেষ্ঠতাতপুত্ৰ ব্ৰজবাবু বলিলেন যে, আমাকে ঐ বড় দুইটা আয়না দিন, এ ছবিগুলান দিন, ঐ জরির পোষাক দিন। আমি তৎক্ষণাৎ তাহাকে সকলই দিলাম। তিনি পরদিন মুটে আনিয়া বৈঠকখানার সমস্ত জিনিষ লইয় গেলেন। ভাল ভাল ছবি ছিল আর আর বহুমূল্য গৃহসজ্জা ছিল, সমস্তই তিনি লইয়া গেলেন। এইরূপে আমার সকল আসাব বিলাইলাম কিন্তু আমার মনের যে বিষাদ সেই বিষাদ, তাহা আর ঘুচে না। কিসে শান্তি পাইব, কিছুই বুঝিতে পারিলাম না। এক এক দিন কোঁচে পড়িয়া ঈশ্বর-বিষয়ক সমস্ত ভাবিতে ভাবিতে মনকে এমনি হারাইতাম যে, কোঁচ হইতে উঠিয়া ভোজন করিয়া আবার কোঁচে কখন পড়িলাম তাহার আমি কিছুই জানি না,-আমার বোধ হইতেছিল, যেন আমি বরাবর কোঁচেই পড়িয়া আছি। আমি সুবিধা পাইলেই দিবা দুই প্রহরে একাকী বোটানিকেল উদ্যানে যাইতাম। এই স্থানটা খুব নির্জন। ঐ বাগানের মধ্যস্থলে যে একটা সমাধিস্তন্ত আছে, আমি গিয়া তাহাতে বসিয়া থাকিতাম। মনে বড় বিষাদ । চারিদিক অন্ধকার দেখিতেছি।