পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৮৭১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রাচীন গদ্য-সাহিত্য—ঈশ্বর গুপ্ত—জন্ম ১৮১১ খৃঃ । করিয়াছি ও করিতেছি তাহারা কিঞ্চিৎ অভিনিবেশ পূর্বক তৎপ্রতি নেত্র নিক্ষেপ করিয়া যত্নযোগে স্থিরভাবে ভাব গ্রহণ করিলে অত্যন্ত সুখী হইবেন এবং অতি সহজেই জানিতে পরিবেন যে বঙ্গভাষার কবি সকল কবিতা দ্বারা কতদূর পর্য্যন্ত ভাবুকত রসিকতা ও প্রেমিকতা প্রকাশ করিয়াছেন। ইহারা কি বিচিত্র কৌশলে স্বভাবকে স্বভাবে রাখিয়া স্ব-স্বভাবে মনের ভাব উদ্দীপন করিয়াছেন। শব্দের কি লালিত মধুরত্ব। ভাবের কি মাধুৰ্য্য সৌন্দৰ্য্য। রসের কি তাৎপৰ্য্য। আশ্চৰ্য্য আশ্চৰ্য্য। কোন পক্ষেই অপ্রাচুর্য্য দেখিতে পাই না। আমরা যতকালে সময়বিশেষে রসবিশেষের পদ্য-প্রবন্ধ পাঠ করি তৎকালে যেন এমত প্রত্যক্ষ হয় যে সেই সকল রস-সমুদ্র প্লাবিত হইয়া লহরী-লীলা দ্বারা তরঙ্গ-রঙ্গ বিস্তার করিতেছে। বিশেষতঃ নায়ক-নায়িকী-উক্তি ভেদের দুই একটী বিষয় পাঠ করিয়া দেখিলে এখনি বোধ হইবে যেন স্ত্রী পুরুষ অথবা সহচরীগণ পরস্পর একত্র হইয়া আমারদিগের সাক্ষাতেই নানা ভাবে নানা ভঙ্গিমায় নানা কৌশলে নানা রসে কথোপকথন করিতেছেন কিছুতেই অসাক্ষাৎকার বোধ হইবে না। পূৰ্ব্বে কয়েকজন কবির জীবন-বৃত্তান্ত প্রকাশ করিয়া গত মাসের প্রথম দিবসের প্রভাকরে বিশ্ববিখ্যাত মহাকবি e/ভারতচন্দ্র রায় গুণাকরের জীবন-চরিত উদিত করিয়াছি এবং অদ্য সেই বিযয় স্বতন্ত্র রূপে উদ্ধৃত করিয়া পুস্তকাকারে প্রকাশ করিলাম। এতন্মধ্যে উক্ত মহাশয়ের প্রণীত অনেকগুলিন অপ্রকাশিত উৎকৃষ্ট পদ প্রকটিত হইয়াছে। সেই সকল কবিতা এ পর্য্যন্ত কাহারে নেত্র-কর্ণের গোচর হয় নাই। তাহার মধ্যে ংস্কৃত বাঙ্গলা হিন্দি ও পারস্ত ভাষার চমৎকার চমৎকার কবিতা আছে। যিনি অভিনিবেশ পূৰ্ব্বক তৎপ্রতি দৃষ্টি নিক্ষেপ করিবেন তিনিই আশ্চর্য্যে অভিভূত হইবেন। তিনিই ভারতচন্দ্রের অসাধারণ ক্ষমতা ও পাণ্ডিত্য বিষয়ের প্রচুর প্রতিষ্ঠা করিতে থাকিবেন। অপিচ আমরা এই গ্রন্থ অন্নদামঙ্গল ও বিস্তাস্কন্দরের কয়েকট কঠিনতর ভাব-ভূষিত গুঢ়াৰ্থ-ঘটিত কবিতা টীকা-সহিত প্রকটন করিয়াছি তাহাতে সকলের মনে সন্তোষের সঞ্চার হইতে পারিবেক । এই পুস্তক বিদ্যালয়ের ছাত্র প্রভৃতি সৰ্ব্ব সাধারণের পক্ষেই অত্যন্ত হিতকর ও আনন্দকর হইবেক। এই স্থলে লিপিবাহুল্য করণের প্রয়োজন করে না কিঞ্চিৎ বিবেচনা পূৰ্ব্বক পাঠ করিলে ভাবগ্রাহী মহাশয়েরা ভাব-তরঙ্গে কখনো ভাসিতে ও কখনো ডুবিতে থাকিবেন। যদিস্তাত সকলে সমাদর পূর্বক এই গ্রন্থ গ্রহণ করেন তবে আমরা বহু কালের পরিশ্রম ও যত্নের সার্থকতা জ্ঞান করিয়া ক্রমে ক্রমে অভিলষিত るb*SS。 ভারতচন্দ্রের অপ্রকাশিত কবিতা ।