পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৮৯৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


○b"8? - - -, - বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় । ( ১৭ ) যারা শুদ্ধমতি প্রকৃত সতী পতিপ্রাণী । ধীরে ধারে উভয় বারে বারে সংসারে করছে আনাগোনা। ’ তাদের সহজ দেশের আদেশে হচ্ছে পরিশ্রম, পতির ইচ্ছে সুখেতে সভের হতেছে যাচ্ছে মনোভ্ৰম, করে জন্ম জন্ম পরিশ্রম ভ্রম ঘটবে, নারী পুরুষে সেই মানুষে দেশে আসিবে, দেশের সঙ্গ পাবে নিদ্রা ভঙ্গ হবে স্বভাবে ঘটকে আন্ধিয়ার। ( ১৮ ) ভাই রে কেউ এ দেশে আসতেছে ভুবৃতেছে ভবাণবে। তলিয়ে যাচ্ছে প্রলয়-জলেতে নীচে উল্লাসে। সেই মানুষের লোভে যাদের এই প্রকারের সাধের চিন্তা হয়, তাদের গোজর বরাবর হবে বেওজর অধর সুধাময়, যারা কাঙ্গাল পেয়ে কাঙ্গাল হয়ে হিয়ে করে দান, নিরবধি সাধের নিধি থাকৃবে বিদ্যমান, লালশশী রচে সহজ দেশের কাছে রয়েছে সহজ ভাবে তারা ॥ ( ১৯ ) কল্পে এই কলুষ ভবে গৌর কে আজব তামাসা । চাচর কেশ মুড়িএ হরি ঘর ছেড়ে হলেন দণ্ডধারী জীবে হেরতে হেরতে রূপমাধুরী ঘুচে গেল দশ দশ । তারিবে এ ভাব ইচ্ছে ভরসা। যারা মহৎ পাপে ভবকূপে ডুবে রয়েছে, - হরি হরি হরি বলে তরিতে লেগেছে, এটা ফলবে ভেবে কলুষ ভবে ছিল সভের প্রত্যাশা। ( २० ) এই যে নদের যজ্ঞেতে নারী পুরুষে। - গৌরাঙ্গের ভাব-তরঙ্গে নাচে উল্লাসে । - দেখে সোণার বর্ণ শ্ৰীচৈতন্ত পূর্ণ কলেবর, ত্রিগুণে তিন ভুবনে জনের মনোহর, এসে যখন কেউ কখন করেন নি এ নকসা ॥