পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৯১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


>br@8 নিদ্রীয় ক্ষেীর-কাৰ্য্য । বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় । । তোলবাখানায় ছাত্র শতেক রাখিয়া । গাজি পালে সে সকলে অন্ন বস্ত্ৰ দিয়া ॥ স্বন্দিপের অন্ধ এক হাফেজ আনিয়া। কোরান পড়ায় সবে পুণ্যের লাগিয়া ॥ হিন্দুস্থান হৈতে এক মৌলবি আনিল। আরবি এলেম ছাত্ৰগণে শিখাইল ॥ জুগদিয়া হৈতে এক গুরুবর আনি। শিখাইল ছাত্ৰগণে বাঙ্গলার বাণী ॥ । ঢাকা হতে মুনসী আনি পারসী পড়ায়। হেন মতে নানা ভাষায় এলেম শিখায় ॥ দিন মধ্যে নিয়ম করিল হেন মতে। - দশ দশ দণ্ড ধরি দুভাগে পড়িতে ॥ ভোর রাত্রি চারি দণ্ড আগজে প্রহর । পাঠের সময় করি দিল গাজিবর ॥ নাপিত । চন্দ্র ও উৎসব দুই গাজীর নাপিত। - চারি সম্বা খেরি করে প্রতিনিত ॥ " কিরূপে করিব খেরি চেতন না পাই। নিদ্রাতে আছেন গজি কেমনে বা যাই ॥ উৎসব নাপিত খুড়া চন্দ্র ভ্রাতা-স্থত i নিদ্রাতে করিল খেরি করিয়া কৌতুক ॥ নিদ্রার আলস্যে গাজি না পায় চেতন। খুড়া ও ভাতিজা দুই ভয়ে কম্পমান ॥ না জানি কি আমাদের প্রাণে বধে গাজি । এক্তেয়ার খানসাম বলে হবে খোস রাজি। এ শুনিয়া পলাইয়া রছে এক স্থানে।। নিদ্রা ছাড়ি উঠে গাজি সানন্দিত মনে ॥ এক্তেয়ারে আনি জল মুখ পাখালিল । মুখ ধোয়া কালে গাজি খেরি-চিহ্ন পেল। গাজিয়ে জিজ্ঞাসে খেরি করিলেক কেবা । আনহ সন্মুখে তারে খেরি কৈল যেবা ॥