পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৯৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১৮৮৯
পরিশিষ্ট—রাধামাধব ঘোষ—১৮শ শতাব্দীর মধ্যভাগ।

অভিমন্যু আসি যদি দেখে আরবার।
স্বচক্ষেতে তব সহ কৌতুক ব্যাভার॥
তবে ত আমার বড় হইবে কুযশ।
এই হেতু মলিন হইনু হৃষিকেশ॥
আইল যে অভিমন্যু দেখহ সাক্ষাত।
লজ্জা ঢাক লজ্জা ঢাক দাসীর অচ্যুত॥

হাসিয়া বলেন হরি শক্তিরূপা তুমি।
শক্তি দেহ অধীনে উপায় করি আমি॥
ইঙ্গিত মাত্রেতে ইন্দুমুখী শক্তি দিল।
রাধা শক্তি লয়ে রাধানাথ কালী হ’ল॥
কৃষ্ণ বলে কমলিনি পূজ তুমি মোরে।
কালীরূপ হয়ে আমি দাঁড়াই সত্বরে॥
কৃষ্ণ-কালী।মহাকালী-মূর্ত্তি কৃষ্ণ হইল তখন।
চতুর্ভূজ অসি-চর্ম্ম-খর্পর-শোভন॥
কটী-তটে নরকর মুণ্ডমালা গলে।
অসুর-দলনী দৈত্য-শির করতলে॥
কেয়ূর কঙ্কণ আদি শোভে আভরণ।
জিহ্বা লহ লহ করে ভ্রমর-দশন॥
মস্তকের চূড়া হৈল কীরিট উজ্জ্বল।
মুক্তকেশী দিগম্বরী বদন বিমল॥
ঘোর-ঘণ্টা-ঘুঙ্গুর-বাদিনী ত্রিনয়না।
উগ্রচণ্ডা রণবেশা রজনী-বরণা॥
ঘোর মূর্ত্তি দেখিয়া মগন হইল রাই।
বদলেতে নবরস হৈল এক ঠাঁই॥
কণ্ঠ কম্বু সুরাতঙ্গ সঘনে শোণিত।
কাল জলে হ’ল যেন জবা বিকশিত॥
নীলমণি মধ্যে যেন নব-গুঞ্জমালা।
সারস-মধ্যেতে যেন শোভে মতি-পলা॥
আশ্চর্য্য ধরিল শোভা ভকতবৎসল।
নীলগিরি মধ্যে ফুটে শোণিত-কমল॥

দেখি সব সখীগণ ভূমেতে পড়িল।
প্রণিপাত করি শত দণ্ডবৎ কৈল॥

২৩৭