পাতা:বরেন্দ্র রন্ধন.djvu/১২৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ষষ্ঠ অধ্যায়—শুক্তি । ›©ፃ eAMAeeMAeeASAeM AeAeSMAeeAeSMAAAS বাউস, কাৎলা, সারঙ্গপুটি প্রভৃতির এই প্রকারে শুক্ত-ঝোল রাধিবে এবং ছোট ছোট কৈ, আইড় প্রভৃতিরও এই প্রকারে শুক্ত-ঝোল রাধ চলে। ১৩০ । রুই (নহলা ) মাছের শুক্ত ( মাছ ভাঙ্গিয়া ) নোছি অপেক্ষ বড় অথচ পাকা মাছ অপেক্ষ ছোট এইরূপ নাতি ক্ষুদ্র রুই মাছকে বরেন্দ্ৰ নহলা মাছ কহে। ইহার দ্বারাই উৎকৃষ্ট শুকঝোল হয়। রোহিতের নহলা অথবা কালবাউস মাছেরই এই শুক্ত ভাল হয়। কাৎল, মৃগেল প্রভৃতি মাছের শুক্ত তাদৃশ স্বাদু হয় না। পাক রুই মঙ্গব অতি ক্ষুদ্র বই অর্থাৎ নোছি মাছের শুক্তাও সুবিধা মত হয় না । মাছ সাধারণ ভাবে কুটিয়া লও। মুণ হলুদ মাখ করিলা ও পটােল ডুম ডুম করিয়া কুটিয়া লও। করিলা বা কোনও একটা তিত স্বাদবিশিষ্ট সবজী মাছ-শুক্তে দিতে পারিলেই ভাল হয় । এবং পটোল না পাওয়া গেলে আলু, আনাজি কল, পেঁপে, কাকরোল, বেগুনের দ্বারাও কাজ চলিবে । রই মাছের সহিত পেপের শুক্ত ভালই হয় । আনাজ তেলে কষাইয়া রাখ । পরে তৈলে তেজপাত, লঙ্কা, মেথি ও সরিষা ( আধ কচড়া গুড়া বা গোটা ) অথবা ফুলকাসুন্দী ফোড়ন দিয়া মাছ ছাড় । আংসাও । অধিক আংসান কৰ্ত্তব্য নহে। মুণ হলুদ দিয়া জল দাও। ফুটিলে ক্যান আনাজ ছাড় । সিদ্ধ হইলে হাতা বা ছুরনী দিয়া মাছ ভাঙ্গিয়া দাও এবং নাড়িয়া সব মিশাইয়া দাও । , অল্প ঝোল ঝোল থাকিতে নামাইয়া আদা ছেচ মিশাও । ইহাতে পিঠালী দিবে না । একটু ঝোল ঝোল রাথিয়া এই শুক্ত নামান হইয়া থাকে, তবে মাছ নরমগোছ থাকিলে উহা কিছু বেশী আংসাইয়া এবং পশ্চাৎ শুকুনা শুকুন করিয়া রাধিয়া নামাইবে। .."