পাতা:বরেন্দ্র রন্ধন.djvu/১৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বরেন্দ্র রন্ধন । মটরশুটার পরিবর্তে মাষকলাইর বড়ী, বুট এবং নারিকেল কুর প্রভৃতিও অনুষঙ্গরূপে ব্যবহৃত হইতে পারে। শুধু মটরশুটার বা তৎসহ বড়ি মিশাইয়া এই প্রকারে বেম্বরী রাধিবে। নেয়াপাতি নারিকেল-শাসেরও এইরূপে বড়ীযোগে বেস্বরী রাধিবে। ১৬৭ ৷ গোল-আলুর ঘণ্ট আলু সিদ্ধ করিয়া ছানিয়া লও। মাষকলাইর বড়ী তেলে ভাজিয়া লও। তৈলে জিরা, তেজপাত, লঙ্কা এবং ইচ্ছা করিলে দুটো মৌরী ও হিঙ ফোড়ন দিয়া আলু ছাড়। আংসাও । মুণ, হলুদ দিয়া অল্প জল দাও । ফুটিলে ভাজা বড়ী ভাঙ্গিয়া ছাড়। বাট ঝাল ছাড়। একটু চিনি দাও । আলুতে পিঠালী দেওয়ার বিশেষ আবখ্যক নাই। জল শুকাইয়া নসনসে গোছ হইলে নামাও । একটু ঘি মিশাও । আলু তেলে ছাড়িয়া পরে তেজপাত উঠাইয়। রাখিবে এবং পরে জল দেওয়া পর পুনঃ মিশাইবে । আনাজি কল, ওল, মান, লাল আলু, গড় আলু, শালুক, বইকচু প্রভৃতির এই প্রকারে ঘণ্ট রাধিবে । ১৬৮ ৷ পালঙ শাকের ঘণ্ট পালঙশাক খুব মিহি কুচি কুচি করিয়া কুটিয়া লও। এতৎসহ কিছু বেগুণ ও শলুপ শাক কুচাইয়া লও। বেগুণ মিশাইলে তবে শাকের ঘণ্ট শেষ পৰ্য্যন্ত বেশ নসনসে হইবে এবং শলুপে পালঙ্গ শাকের দুর্গন্ধ দূর করিবে । আবার ইচ্ছা করিলে বথুয়া শাকও কুচি কুচি করিয়া কুটিয়া ইহার সঙ্গে মিশাইতে পার। মাষকলাইর বড়ী ভাজিয়া রাখ। তেলে জিরা, তেজপাত ও লঙ্কা ফোড়ন দিয়া শাক ছাড়। খানিক আংসাইয়া বেগুণ ছাড়। সমস্ত উত্তমরূপে আংসাও । মুণ হলুদ দিয়া জল দাও। ফুটিলে ভাজা বড়