পাতা:বরেন্দ্র রন্ধন.djvu/১৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


►ዋG বক্সে রন্ধন । অপরাপর তৈলাক্ত মোট মাছ এবং সামুদ্রিক চাদ ( পমফ্রেট ), शत्र ( মেকৃরেল ), ভাঙ্গন, এবং ভেটকী প্রভৃতিও এই প্রকারে রাধিবে । ২০০ । কৈ-মাছের ঝাল সুন্টু দেখিয়া কৈ-মাছ সংগ্রহ কর । মাছ গোটা রাখিয়া কুটিয়া লও । মাছের গাত্রে দুই এক স্থানে পাথাইল বা আড় ভাবে সামান্ত চিরিয়া লইতে পার। মুণ হলুদ মাখ। কচি লাউ লইয়া ডুম ডুমা করিয়া কুটিয়া কাইয়ালও। যদি পাওয়া যায় নূতন আলুও কুটিয়া কাইয়া রাখতে পার। মাধকথষ্ট্রর হিঙবড়ি কিছু বেশী পরিমাণে লইয়া কাইয়া রাখ। তৈলে জিরা, তেজপাত, লঙ্ক ও মেথি ফোড়ন দিয়া মাছ ছাড়। আংসাও। লঙ্ক বাট, হলুদ বাট বা গুড়া ও মুণ দিয়া জল দাও । ফুটিলে কষান বড়ি (গেট) এবং কষান লাউ ও নুতন আলু ছাড় । ( আলু ও লাউ পৃথক ভাবে দিয়াও ঝাল রাধিতে পার। ) সিদ্ধ হইলে জিরা-মরিচ বাট, তেজপাত বাট ও ইচ্ছা করিলে তৎসহ পিপুল বাট ও একটু পিঠালি দিয়া ঝালরস ঈষৎ গাঢ় করিয়া নামাও । ইচ্ছা করিলে ভাজা রাধনীর গুড়াও মিশাইতে পার । কাৰ্ত্তিক, অগ্রহায়ণ ও পৌষ মাসে যখন কৈ-মাছ বেশ সুপুষ্ট হয় এবং যখন লাউ ও আলু নূতন উঠে এবং যখন মাষকলাইর বড়ি নুতন প্রস্তুত হয় তখন সেই কৈ-মাছের ঝাল রাধিয়া খাইলে তবে তাহার প্রকৃত আস্বাদন বুঝা যাইবে । ২০১ । মাগুর মাছের বাল মাগুর মাছ কুটিয়া মুণ হলুদ মাখ। আলু ও কচি পটোল বা বেগুণ কষাইয় রাখ। তৈলে তেজপাত ও জিল ফোড়ন দিয়া মাছ ছাড় । আংসা ৪। মুণ হলুদ দিয়া জল দাও। ফুটিলে কষান আনাজ ছাড়। সিদ্ধ হইলে জিরা