পাতা:বরেন্দ্র রন্ধন.djvu/২১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

১৯২

বরেন্দ্র রন্ধন


 খ। নারিকেল কুড়াতে গরম জল ঢালিয়া দিয়া উপরোক্ত বিধানে ‘দুগ্ধ’ বাহির করিয়া রাখ। অবশিষ্ট কুড়াটুকু লইয়া পাটায় মিহি করিয়া বাটিয়া লও। এক্ষণে ঘৃতে তেজপাত, গোটা গরম মশল্লা এবং পেঁয়াজ কুচা ফোড়ন দিয়া লঙ্কা বাটা, ধনিয়া বাটা, জিরা-মরিচ বাটা (অল্প), আদা বাটা, (রশুন বাটা) ও নারিকেল-কুড়া বাটা ছাড়। আংসাও। মাংস ছাড়। আংসাও। মাংসের নিজ জল মরিয়া ভাজা মশল্লার সুঘ্রাণ বাহির হইলে গরম জল দাও। ফুটিলে কষান আনাজ ছাড়। সিদ্ধ হইলে নারিকেল-দুগ্ধ দাও। নুণ হলুদ ও চিনি দাও। ঝোল গাঢ় হইলে নামাও।

 নারিকেলের দুধের পরিবর্ত্তে মিষ্ট বাদাম বাটা, পোস্তদানা বাটা অথবা মোয়া ক্ষীর মিশাইয়া মালাইকারী রাঁধিতে পার।

১২৮। বাগ্দা চিঙড়ীর মালাই-কারী

 অপরাপর চিঙড়ী অপেক্ষা বাগ্দা চিঙড়ীর মালাই-কারীই উৎকৃষ্ট হয়। চিঙড়ী মাছ খুব টাটকা হওয়া প্রয়োজন, কিছুমাত্র পচা হইলেও তাহা খাইলে খুব অসুখ করিতে পারে, ইহা স্মরণ রাখিবে। টাট্‌কা চিংড়ী মাছ লইয়া উহার বুকের ও পিঠের দাঁড়ার কাল রগটী উঠাইয়া ফেলিয়া বেশ পরিষ্কার করিয়া ধুইয়া লও। আলু, কলাইশুটী, লাউ, শশা, ফুলকোবি, সালগম, ওলকোবি, স্কোয়াস চিংড়ী মাছের মালাইকারীর সহিত চমৎকার মজিয়া উপরের লিখিত বিধানে কষান আনাজ সহ চিংড়ী মাছের মালাইকারী রাঁধিবে। চিংড়ী মাছ অধিক কষাইলে শক্ত হইয়া যায় স্মরণ রাখিবে। ইচ্ছা করিলে আনাজ বাদ দিয়াও মালাইকারী রাঁধিতে পার।

 কাঁকড়ার মালাইকারী এইভাবে রাঁধিবে। কই, মহাশোল, শোল, আইড়, শিঙ, বাচা, বাইম, মাগুর, কানচ, ইলিশ, ভেট্‌কী, সুর, সরলী, তুলাদণ্ডী প্রভৃতি মাছেরও এই প্রকারে উত্তম মালাইকারী রাঁধা যায়।