পাতা:বরেন্দ্র রন্ধন.djvu/৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় অধ্যায়—সিদ্ধ। YY AAAAAA AAAASAAAA SAeAMAeAMAMA AMSAMAMMAMAeBS SAeeA AMAMAMAAA AAAAA سیح تصمه تحصح এখন চালনীতে যে ক্ষুদ অবশিষ্ট আছে, তাহা লইয়া ভাত পাক কর । মুঠাগুলি তাহার মধ্যে ছাড় । স্বসিদ্ধ হইলে মাড়ে মাড়ে ভাত নামাও । এই ভাত বেশী পরিমাণে ঘৃত এবং মুণ মাখিয়া খাইতে ভাল, এবং মুঠা ডাইল অথবা বেগুরী প্রভৃতি সহ খাইতে ভাল। মুঠা গুড় দিয়াও . সাধারণতঃ খাওয়া হইয়া থাকে। অগ্রহায়ণ মাসে নুতন আমন ধান উঠিলে লুঠন ষষ্ঠীর দিনে এই ফেণ-মুঠ খাওয়া হইয়া থাকে। ১৪। ক্ষুদের জাউ চাঊেলর ক্ষুদ বেশ করিয়া ধুইয়া স্বাড়িতে ক্ষুদ ও পরিমাণ মত জল দিয়া 獸 সিদ্ধ কর। সিদ্ধ হইলে ঘাটিয়া লইয়া নামাও। ইহার স্কুল গালিতে হয় না। এক্ষণে শুরুলিঙ্কা পোড়াইয়া গুড়া,করিয়া লও এবং কালজিরা. আধকচড়া করিয়া বাট। পরে উভয় তেল মুণ সহ একত্রে মিশাইয়া ক্ষুদের জাউর সহিত মাখিয়া খাও । ১৫ । পযুষিত অন্ন পযুষিত অন্ন বিবিধ উপায়ে প্রস্তুত ও বিবিধ উপকরণ যোগে ভক্ষণ করা বাঙ্গালা দেশের সর্বত্র প্রচলিত আছে । এতন্মধ্যে সচরাচর ব্যবহৃত দুই একটি সম্বন্ধে লিখিত হইল । 聽 (ক) পান্তাভাত—অন্নে জল দিয়া কিছুক্ষণ রাখিয়া দিলে যখন তাহ কিঞ্চিৎ অন্নস্বাদবিশিষ্ট হইবে তখন তাহার সহিত মুণ, ছোট-পেয়াজ, ঝালকাস্থল প্রভৃতি মাখিয়া খাইবে। পাস্ত ভাতের অন্ন জলকে ‘আমনি বলে । কঁচা আম দেওয়া মটর ডাইলের চড়চড়ী দ্বারা মাখিয়া অপর কোন প্রকার চড়চত্নী, কঁাটালের ঝাল, বেস্তরী প্রভৃতি সহও ইছা খাইতে ভাল। দুর্গোৎসবে বিজয়-দশমীর দিবসে দর্পণ-বিসর্জনের পুৰ্ব্বে পাস্তাভাত ও নলের বেস্তরী দ্বারা ‘মা’র ভোগ দেওয়া হইয়া থাকে।