পাতা:বরেন্দ্র রন্ধন.djvu/৩৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ՖԵ বরেন্দ্র রন্ধন সাদা পিকল-কিমা বা চৌ-চেী মিশাইলে ইহা ‘চৌ-চেী-সস’ হইবে। ইলিশ মাছ চৌ-চেী—মাছ ভাপে সিদ্ধ করিয়া কাটা বাছিয়া ফেলিয়া একখানা ডিসে সাজাও । আদা চাকা, কাচা লঙ্কা চাকা, পেয়াজ চাকা, সিদ্ধ আলু চাকা, শশী চাকা বা স্বতার মত করিয়া বানান মাছের সহিত সাজাও । এখন সির্ক ও কুণ মাছের উপর ঢালিয়া থাইতে দাও । কেহ, কেহ সির্কায় আদ, কাচা লঙ্ক ও শশা পূৰ্ব্বে একটু জাল দিয়া লয়েন। ব্রাউন সন্ম-হাড়িতে ঘি দিয়া তেজপাত পেয়াজ কুচি ও রপ্তন ছাড়। নাড় । লালচে রঙ্গ হইলে মাছের বা মাংসের সুরুয়া মিশাও । কুণ মরিচ গুড়, পার্শলী, সেলের প্রভৃতি বাগানের মশল্পী, সালগম ও গাজর কুচি ছাড় । স্বসিদ্ধ হইলে নাড়িয়া নামাও । একটু কেরামেল (পোড়া-চিনির রঙ্গ) মিশাও। এর্কিণে হাড়িতে পুনঃ মাখন উঠাইয়া ময়দা ছাড় । লালচে হইলে ঐ পক সুরুয়া ঢালিয়া দাও । গাঢ় হইলে নামাইয়া নেকড়ার ছকিয় লও। ইহার সহিত ইচ্ছানুসারে এঞ্চবী, টোমেটো প্রভৃতি সস্, আমের ভিনিগার চাটনী, কেপার, পিকল প্রভৃতি মিশাইয়া বিবিধ ঘ্ৰাণবিশিষ্ট করিতে পার। ২৭। পক্ষী সিদ্ধ (বৈদেশিক ) । একটি ইঁড়িতে কিছু জল দিয়া তাহাতে আদা চাকা, পেয়াজ চাক, মুণ, তেজ পাত ও গোটা গোল মরিচ ছাড়িয়া সিদ্ধ কর । ফুটিলে মারা গোটা পার্থী (সাফ করিয়া ) তন্মধ্যে ছাড়। পার্থী সুসিদ্ধ হইলে নামাইয়া জল হইতে উঠাইয়া রাখ। অবশিষ্ট জলটুকু নেকড়ায় ছকিয় লও এবং তদ্বারা হােৱাইট প্রভৃতি সস পাকাইয়া তৎসহ সিদ্ধ পক্ষী খাও। ২৮। পক্ষীর ডামপ্লিং ( বৈদেশিক ) । একুটি মারা গোটা পক্ষীর ভিতরের নাড়ী প্রভৃতি বাহির করিয়া এবং পালকাদি উপড়াইল্লা ফেলিয়া উত্তমরূপে সাফ করিয়া লও।' সাবধান যেন