পাতা:বরেন্দ্র রন্ধন.djvu/৪২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


२२ বরেন্দ্র রন্ধন । সহিত কঁাচা মাংস-খণ্ড সিদ্ধ করিয়া আবযুষের জল প্রস্তুত করিতে হয়। তবে বড় চিঙড়ী মাছের মুড়া বা ছোট ছোট চিঙড়ী মাছের দ্বার আবযুষের জল প্রস্তুত হইতে পারে। কেহবা হাকৃড়ায় মশল্পী বাধিয়া তদ্বারা আবযুষের জল প্রস্তুত করিয়া থাকেন কেহবা তাহা না করিয়া মশলাগুলি এড়া ভাবেই জলে ছাড়িয়া সিদ্ধ করিয়া পশ্চাৎ সেই জল ছাকিয়া লয়েন। মাংসখণ্ডগুলি বা চিঙড়ী মাছ মশল্লার সহিত একত্রে জলে সিদ্ধ করিতে হয় এবং পশ্চাৎ সেই জল ছকিয়া লইতে হয়। আখনির জল পরিষ্কৃতভাবে ছাকা হওয়া প্রয়োজন নচেৎ পোলাও খিচখিচে হইবে । ক –মাংসের পোলাও । - একটা হাড়িতে গোটা ধনিয়া, গোটা জির, গোটা গোলমরিচ ( কেহ বা সাধারণ জিরা ও মরিচের পরিবর্তে সাজিরা ও সা-মরিচ ব্যবহার করিয়া থাকেন ) শুক্না লঙ্কা, ( কেহ বা লঙ্কা ব্যবহার করা পছন্দ করেন না ) গোটা পেয়াজ, আদা ছেচা ও গোটা গরম মশল্পী, মুণ ও একটু চিনি চাউলের পরিমাণ অনুসারে আন্দাজ মত লও। /৫ পাঁচ সের চাউলের পোলাও রধিতে হইলে লঙ্কা Wo এক ছটাক, ধনিয়া /০ আধ পোয়া, জিরা /o এক ছটাক, গোলমরিচ /e এক ছটাক, আদl do আধ পোয়, পেয়াজ 9০ আধ পোয়, ছোট এলাচ দুই তোলা, লবঙ্গ দুই তোলা, দারচিনি ২১০ আধ ছটাক, হিসাবে আখনির মশলায় লাগিবে। মাংস ছোট ছোট খণ্ড করিয়া চাউলের অৰ্দ্ধেক হিসাবে লও। হাড়িতে ৫ পনের সের মত শীতল জল দিলা সমস্ত একত্রে জালে উঠাইয়া দাও । হাড়ির মুখ ঢাকিয়া দাও । সমস্ত বেশ সুসিদ্ধ হইলে অর্থাৎ তিন ভাগ জলের দুই ভাগ অবশিষ্ট্র থাকিলে এবং জলের রঙ্গ লালচে বর্ণ হইলে, নামাইয়া নেকুড়ায় ছকিয় জলটুকু লও। ইহাই হইল আবযুষ বা আখনির জল । * R