পাতা:বরেন্দ্র রন্ধন.djvu/৬৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তৃ৩াল্প অধ্যাঞ্চ-ভাজ 8云y বাট বা রস (ইলিশ মাছে আদ পেয়াজ বাট না দিলেই যেন ভাল হয়। ) ও কিঞ্চিৎ অম্লরস মাখ। অবশেষে সুজী বা ব্রেডক্রম্ব মাখিয়া তৈয়ে করিয়া স্বতে ভাজ। ( ইউরোপীয়গণ মুণ, মরিচ গুড়া, এঞ্চবী সস, কিঞ্চিৎ অম্বরস [ আদা পেয়াজাদির প্রয়োজন হয় না ] ও তৎসহ একটী পক্ষী ডিম্বের শাস মিশাইয়া ‘গোলা’ প্রস্তুত করতঃ তন্দ্বারা মাছ মাখিয়া লইয়৷ তৎপর তাহা ব্রেড ক্রাম্বের উপর গড়াইয়া লইয়া ঘৃতে ভাজিয়া থাকেন। মাছের গায়ের চিকণাই টুকু অনেক সময়ে উঠাইয়া ফেলিয়া মৎস্ত খণ্ডকে গোল মাখিবার উপযুক্ত কৰুি লরেন।) ইলিশ মাছের মুজী-ভাজী' অপেক্ষা সরিষা বাট দিয়া ভাজাই যেন অধিকতর সুস্বাদু হয়। তৎক্ষেত্র সরিষা বাটা লইয়া তাহাতে কিছু চাউলের গুড়, মৃণ, হলুদ ও কাঁচালঙ্কা বাটা মিশাইয়া ফেনাও। ইলিশ মাছ চাকা ইহাতে চুবাইযা তুলিয়া তেলে ভাজ । ইলিশ জাতীয় অপবাপর মধুব ও নোণা জলের মাছ যথা –থষ্টর, ফাস, ( এঞ্চবী ) ( সাডিন) প্রভূতি, ইলিশ মাছের ডিম এবং বড় চিঙড়ী মাছের মাথা এই সকল প্রকারে ভাজা যাইতে পারে। ( ঘ ) কৈ মাছ—“কৈ ভজে গণ্ডাদশ মরিচ-গুড়িয়া আদারসে” – কবিকঙ্কন চণ্ডী ) । বড় বড় সুপুষ্ট দেখিযা কৈ মাছ লও। গোটা রাখিয়া কুটিয়া লও। গায়ে দুষ্ট একস্তানে আড় ভাবে চিব দিয়া লও, যাহাতে ঝাল মুণাদি ভিতরে প্রবেশ কবিতে পাবে। মুণ, (হলুদ ), গোল মরিচ গুড়া, আদা বাট বা রস, এবং রুচী অনুসারে পেয়াজ বাট বা রস এবং • কিঞ্চিৎ,অক্সরস দিয়া মাছ মাখ। স্বজী বা ব্রেড ক্রাম্বের উপর ফেলিয়া পালটাইয়া গায়ে সুঞ্জী বা ব্রেডক্রান্ধ মাখিয়া লইয়া ঘৃতে ভাজ। ইউরোপীয় ধরণে এরোরুট বা ডিমের শাস সহ গোলা প্রস্তুত করতঃ তাহাতে মাছ মাখিয়া লইয়া ব্রেডক্রাম্বে গড়াইয়া ভাজিলে উৎকৃষ্ট হইবে । ইলিশ মাছের ন্তায় কৈ মাছেরও সরিষা বাট দিয়া ভাজি হইতে পারে।