পাতা:বাংলাদেশ কোড ভলিউম ২৯.djvu/১৫১

From উইকিসংকলন
Jump to navigation Jump to search
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পানি সম্পদ পরিকল্পনা আইন, ১৯৯২ ృ(\రి (৪) সংস্থা উহার দায়িত্ব পালনে সহায়তা দানের জন্য তৎকর্তৃক গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুসারে অন্যান্য কমিটি গঠন করিতে পারিবে। ১২। (১) সংস্থার একটি তহবিল থাকিবে এবং উহাতে সরকারের অনুদান, সংস্থী-তহবিল অন্য কোন উৎস হইতে প্রাপ্ত দান ও অনুদান এবং সংস্থা কর্তৃক প্রাপ্ত অন্য যে NONকোন অর্থ জমা হইবে। ് o (২) এই তহবিল সংস্থার নামে তৎকর্তৃক অনুমোদিত কোন তফসিলী s ব্যাংকে জমা রাখা হইবে এবং বিধি দ্বারা নির্ধারিত পদ্ধতিতে তহবিল হইতে অর্থ ് উঠানো যাইবে। SS (৩) এই তহবিল হইতে সংস্থার প্রয়োজনীয় ব্যয় নির্বাহ করা হইবে, তবে ২০ সংস্থা প্রবিধান দ্বারা নির্ধারিত পদ্ধতিতে এই তহবিলের কিছু অংশ সরকার কর্তৃক অনুমোদিত কোন খাতে বিনিয়োগ করিতে পরিবে। ഴ്സ് ১৩। সংস্থা প্রতি বৎসর সরকার কর্তৃক নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে উহার পরবর্তী বাজেট অর্থ বৎসরের বার্ষিক বিবরণী সরকারের নিকট পেশ করিবে এবং উহাতে উক্ত অর্থ বৎসরে সরকারের নিকট হইতে সংস্থার কি পরিমাণ অর্থের প্রয়োজন উহার উল্লেখ থাকিবে। o Q S8 I (S) সংস্থা যথাযথভাবে উহার হিসাব রক্ষণ করবে এবং হিসাবের ಗ বার্ষিক বিবরণী প্রস্তুত করিবে । oS - So (২) বাংলাদেশ মহা-হিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক, অতঃপর মহা-হিসাব নিরীক্ষক নামে অভিহিত, প্রতি বৎসর সংস্থার হিসাব নিরীক্ষা করবেন এবং নিরীক্ষা রিপোর্টের একটি করিয়া অনুলিপি সরকার ও সংস্থার নিকট পেশ করিবেন। O & (৩) উপ-ধারা (২) মোতাবেক হিসাব নিরীক্ষার উদ্দেশ্যে মহা-হিসাব নিরীক্ষক কিংবা তাহার নিকট হইতে এতদুদ্দেশ্যে ক্ষমতাপ্রাপ্ত কোন ব্যক্তি সংস্থার সকল রেকর্ড, দলিল-দস্তাবেজ, নগদ বা ব্যাংকে গচ্ছিত অর্থ, জামানত, ভাণ্ডার এবং অন্যবিধ সম্পত্তি পরীক্ষা করিয়া দেখিতে পারিবেন এবং সংস্থার কোন সদস্য, মহা-পরিচালক, পরিচালক বা সংস্থার অন্য যে কোন কর্মকর্তা বা কর্মচারীকে জিজ্ঞাসাবাদ করিতে পারবেন। c$ CŞ ১৫। সংস্থার কার্যাবলী সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের উদ্দেশ্যে সংস্থা প্রয়োজনীয় সংস্থার কর্মকর্তা ও সংখ্যক কর্মকর্তা ও অন্যান্য কর্মচারী নিয়োগ করিতে পারবে এবং তাহদের " চাকুরীর শর্তাবলী প্রবিধান দ্বারা নির্ধারিত হইবে।