পাতা:বাংলার পাখি - জগদানন্দ রায়.djvu/১৫৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


308 বাংলার পাখী। যায়। বিহার ও উত্তর-পশ্চিম অঞ্চলে রাস্তা-ঘাটের ময়লা খাইবার জন্য এই শকুনরা দলে দলে বেড়ায়। শকুনের বাসা বোধ করি তোমরা সকলে দেখা নাই । গাছের খুব উঁচু ডালে ইহারা শুকনা ডাল-পালা দিয়া শীতকালে বাসা বঁধে। তোমরা হয় ত’ ভাবিতেছ, কাক শালিকদের মতো ইহারা বাসার জন্য গাছের তলা হইতে শুকনা DDDDSD DDDB DBB S SBD DDBB DBB DDD DDSS সেই বঁকানো এবং চেপােটা ঠোঁট দিয়া ইহারা পাতা সমেত BSYB DDD DDD SDB BB DBB DDD S BBB ইহারা ডানা মেলিয়া গাছের কঁচা ডাল ভাঙে, তখন তাহাদের চেহারাগুলি দেখিলে হাসি পায়। বাসা তৈয়ারির সময়ে শকুনদের মেজাজও ভয়ানক চটা রকমের হয়। এই সময়ে তাহারা প্রায়ই পরস্পর মারামারি DD DDDSDDD DBB SS SBBDDBBD DDD BBzS BDBBS গাছে যদি শকুনের আডা থাকে, তবে বাসা তৈয়ারি ও ডিম . পাড়ার সময়ে ইহাদের চীৎকার শুনিতে পাইবে। , শকুনরা প্রায়ই বাসায় একটার বেশি ডিম পাড়ে না । কিন্তু সেই একটাতেই বাচ্চা হয়। অন্য পাখীরা ভয়ে শকুনের বাসায় উৎপাত করে না । উহাদের নোংরামি ও গায়ের দুর্গন্ধের জন্য মানুষেও বাসার কাছে ঘেসে না। তাই শকুনদের ডিম প্রায়ই নষ্ট হয় না। তোমরা যদি লক্ষ্য কর, তবে দেখিবে, যে-সব পাখীর ডিম বেশি নষ্ট হয়, কেবল তাহারাই বেশি ডিম পাড়ে।