পাতা:বাংলার পাখি - জগদানন্দ রায়.djvu/১৭০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


w বাংলার পাখী অন্য কুলেচর পাখীরা চরিবার সময়ে জলের ধারে আসে, --তারপরে সন্ধ্যার সময়ে আপন আপন গাছে ফিরিয়া शि, झांद्धि शीघ्र। क्खि उछल्क्द्रा उांश कान न। জলের ধারের ঝোপ-জঙ্গলেই তাহার রাত্রি কাটায় এবং সেখানেই বাসা বাঁধে। . ट्रेशा छाला ऐछिाङ *iाद्र मा ; ऊाछे বাসা বঁধিয়া বাস করিবার জন্য দূরে যাইতে চায় না। ডাহুকের বড় সতর্ক পাখী, एछiछक কোনো রকমে তাড়া পাইবামাত্র ছুটিয়া জঙ্গলের ভিতরে লুকাইয়া পড়ে। কিন্তু তাই বলিয়া ইহাদিগকে ভীতু পাখী। মনে করিয়ো না। আমাদের পুষ্করিণীর ধারের জঙ্গলে কয়েকটা ডাহুক থাকিত, আমরা যখন জলে সাতার কাটিতাম, তাহারা আপন মনে জলের ধারের ফলমী লতার মধ্যে চরিয়া বেড়াইত এবং কখনো কখনো পরস্পরকে ডাকাডাকি করিত, -একটুও ভয় পাইত না। অন্য পাখীদের মতো ডাহুকের বৈশাখ মাস হইতেই বাসা বঁধিবার আয়োজন করে। তার পরে ডিম পাড়িয়া বাচ্চাদের পালন করিতে আষাঢ় মাস পৰ্য্যন্ত কাটিয়া যায়। কিন্তু বাচ্চাদের পালন করিতে হয় বলিয়া ইহাদের চীৎকার থামে না। বরং বর্ষা কালে ইহাদের গলা বেশি করিয়া শুনা যায়। বোধ করি তখন বাচ্চাদের জন্য বেশি কাজ-কৰ্ম্ম করিতে হয় বলিয়া, আনন্দে চীৎকার করিয়া আরাম করে। ডাহুকদের