পাতা:বাংলার পাখি - জগদানন্দ রায়.djvu/৮৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বাংলার পাখী। &ዓ कार्य्.एर्लाक्ttव्र कार्ट cर्छाक्व्र भांश्च “क् -ऐंग्-इ-व्र-- র-র”—শব্দ শুনিতে পাইবে। কাঠ ঠুকরাইয়া , পোকা বাহির করার জন্য কাঠঠোকরাদের ঠোঁট খুব ধারাল এবং গাছ আঁকড়াইয়া ধরার জন্য পায়ের নখও খুব শক্ত ও ছ’চালো থাকে। সকলেরই OYS S DDDDS DDDS GB BBDBS gDD BBD EKBDBBDD BDBD BD D DBBD DBDDD DBBS S BBB D D gBDS LDBDD BBDBBS ESBDDD DDD তাই পোকা ধরার জন্য কাঠঠোকরাদের জিভে সুন্দর ব্যবস্থা আছে। ব্যােঙরা কি-রকমে পোকা ধরিয়া মুখে পোরে, তোমরা হয়ত তাহা দেখিয়াছ। ব্যাঙের জিভ, খুব লম্বা,-সেই লম্বা জিভ, বাহির করিয়া পোকা ধরিয়া সে R caifft কাঠঠোকরার ঠোঁট দিয়া পোকা না ধরিয়া ব্যাঙদের মতো জিভা দিয়াই পোকা ধরে, এই জন্য ইহাদেরো জিভ বেশ লম্বা। কেবল ইহাই নয়,- কাঠঠোকরার জিভের আগায় ছুীচের মতে কঁাটা এবং এক রকম আঠা লাগানো থাকে। সেই কঁটায় বিধিয়া ও আঠায় জড়াইয়া ইহারা পোকাদের মুখে পোরে। আমাদের দেশে সাধারণতঃ দুই রকমের কাঠঠোকুরা দেখা যায়। কিন্তু সমস্ত ভারতবর্ষে ছাপ্লান্ন উপজাতির কাঠ DB BYSS K KSgD S DDDS KBD BD gE মাথায় লাল কুটি-ওয়ালা কাঠঠোকরা সাধারণতঃ আমাদের