পাতা:বাংলার ব্রত - অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

दां९छद्र बड AO এর পর, সুৰ্যের উদয় দর্শন করে, স্নান করে, ব্ৰতশেষে নদীতীরে দাড়িয়ে সুৰ্যোদয় বর্ণনা করে ছড়া ब्रां ऊँcछन ब्रांच ऊँcछन बgg-चांद्र चांदb । কার হাতে রে তেল-গামছা ? দাওগো রোয়ের হাতে। রায় উঠছেন রায় উঠছেন মেজো-গঙ্গার ঘাটে । কার হাতে রে শাখা সিন্দুর দাওগো রোয়ের হাতে । রায় উঠছেন রায় উঠছেন ছোটো-গঙ্গার ঘাটে । রায় উঠছেন অন্নে, তামার হাড়ির বর্ণে, তামার হাড়ি, তামার বেড়িএর শেষটুকুতে হিন্দুয়ানি আপনার নাম দস্তখত করে এক আঁচড় দিয়েছে -“উঠ উঠ মা-গৌরী নিবেদন করি।” । হঠাৎ মা-গৌরী এসে কেন যে বেড়ি ধরেন তা বোঝা গেল না । কাকৃঝকে আয়নার উপরে পেরেকের আঁচড়ের মতো এই শেষ লাইনটা ; বা যেন মিশনারি-ছুলে-পড়া মেয়ের মুখে- বড়ো মেমা নমস্কার’-খাপছাড়া, শ্রুতিকটু, অর্থহীন। এর পরে মেয়ের ঘরে এসে পোষমাসের পিঠে খাবার আয়োজন করে যে ছড়া বলছে--সেটাও এলাইনটার চেয়ে সহজ আর সুন্দর । - आथी खललि, श्रांथा 5ललि, চন্দন-কাষ্ঠে রন্ধনঘরে, জিরার আগে তুষ পোড়ে, খড়িকার আগে ভোজন করে, প্ৰাণ স্বচ্ছন্দে নতুন বসতে কাল কাটাব মোর জন্মায়ন্তে । তোষলা ব্ৰতের অনুষ্ঠান, এই শীতের প্রভাতের দৃশ্যপটগুলি, আর সদ্যস্নাত মেয়েদের মুখে সিন্দূর এবং মাজিত তামার বর্ণ রক্তবাস সূর্যের উজ্জ্বল বর্ণনাআমাদের সহজেই সেইকালের মধ্যে নিয়ে যায় যেখানে দেখি মানুষে আর বিশ্বচরাচরের মধ্যে সরস একটি নিগুঢ় সম্বন্ধ রয়েছে; গড়াপেটা শান্ত্রিীয়