পাতা:বাংলার ব্রত - অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

दांखांद्र ड्ड ফুটে উঠেছে দেখি। এ দুয়েরই মধ্যে লোকের আশা আশঙ্কা চেষ্টা ও কামনা আপনাকে ব্যক্ত করেছে এবং দুয়ের মধ্যে এই জন্যে বেশ একটা মিল দেখা যাচ্ছে। নদী সুৰ্য এমনি অনেক বৈদিক দেবতা, মেয়েলি ব্ৰতেও দেখি এদেরই উদ্দেশ্যে ছড়া বলা হচ্ছে । বৈদিক যুগে ঋষিরা উষাকে এবং সূর্যের উদয়কে আবাহন করছেন : উষাদেবতা। অঙ্গিরাপুত্র কুৎস ঋষি ৷ সূর্যের মাতা শুভ্ৰবৰ্ণ দীপ্তিমতী উষা আসিয়াছেন। সুৰ্যদেবতা। কশ্বপুত্র প্রস্কশ্ব ঋষি ৷ র্তাহার অশ্বগণ তঁহাকে সমস্ত জগতের উর্ধের্ব বহন করিতেছে। আবার নদীসকলকে উদ্দেশ করে : কোনো কোনো জল একত্রে মিলিত হয়, অন্য জল তাহদের সহিত মিলিত হইয়া সমুদ্রের বাড়বানলকে গ্ৰীত করে। এর পরে যেগুলি শাস্ত্রীয় ব্ৰত বলে মেয়েদের মধ্যে চলেছে তার একটি সূৰ্যস্তব नभः नभः किद्भ ऊङिन्द्र कांब्र°, ভক্তিরূপে নাও প্ৰভু জগৎকারণ । ভক্তিরূপে প্ৰণাম করিলে তুয়া পায়, মনোবাঞ্ছা সিদ্ধ করেন। প্ৰভু দেবরায় ৷ বৈদিক সুৰ্য আর শাস্ত্রীয় ব্ৰতের সূৰ্য, দুয়ে তফাত যে কতটা তা দেখতে পাচ্ছি। এইবার খাটি মেয়েলি ব্ৰতের ছড়াতে সুৰ্যকে উষাকে এবং নদনদীকে কীভাবে লোকে বর্ণনা করছে দেখি । নদী থেকে জল তোলাবার মন্ত্র বা ছড়া এ নদী সে নদী একখানে মুখ, डांछलि-ॐांबूद्धांनेि यू5ांप्यन छथ। এ নদী সে নদী একখানে মুখ, দিবেন। ভাদুলি তিনিকুলে সুখ ৷