পাতা:বাগেশ্বরী শিল্প-প্রবন্ধাবলী.djvu/২৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জাতি ও শিল্প २२¢ gালয় শিল্প; তাতে রস থাকে না, ছাতুর মতো ভারি শুকনো জিনিষ থাকে লঠীয় শিল্পে—অনেক খানি গুড় না হ’লে সেই জাতীয় পুষ্টিকর জিনিষ রাচে না একেবারেই ৷ জাতীয় উৎকর্ষ এবং শিল্পের উৎকর্ষ সমাজের মতো একভাবে একসঙ্গে হয় না, এ এক হিসেব ধরে বাড়ে ও অার এক হিসেব নিয়ে বাড়ে—একের বাড় অন্যের বাড়ের সাপেক্ষ নয়। ধন বাড়লে সঙ্গে সঙ্গে বিদ্যাও বাড়বে এ যেমন ভুল, জাতির উৎকর্ষ বলতে শিল্পীর উৎকর্ষ ভাবাও ঠিক তেমনি ভুল। জাত যে হিসেবে বড় হয় সে হিসেবে তার সঙ্গে শিল্পকলাও যে বড় হ’য়ে ওঠে এমনটা ঘটে না । জাত বলতে বলি—নেশন । আজকের জাপান জাত হিসেবে মস্ত কিন্তু শিল্পের দিক দিয়ে আমাদের কবির সেই ‘অসভ্য জাপানের কাছে আজকের জাপানের হার হয়েছে । নেশন হিসেবে এই উৎকর্ষ আজ পেলে জাপান, সেদিনের জাপান নেশন হিসেবে উৎকর্ষ পায়নি কিন্তু আর্ট হিসেবে বড় ছিল প্রাচীন জাপান । জাতি আর্টের জননী নয়, হ’তেও পারে না ; জাতির সঙ্গে আর্টের তো গান্ধৰ্ব বিবাহ হয় না, আর্টিষ্টের সঙ্গেই সেটা হ’য়ে থাকে বরাবর। বসন্তকালে বাগানের গাছে ফুল ধরে, তাই দেখে ফুল-স্মৃষ্টিকত। বাগানের মালিককে ভেবে নেওয়া ভুল, বসন্ত দেবতা বলে মাত ধরিত্রী বলে দক্ষিণ বায়ু বলে কতকগুলো যে আছে। জাতির ফুয়ে জাতীয়তার গৌরব জ্বলে কিন্তু ফুলের মুখ খোলে না। জাতির গড়া ন্যাশানাল পার্ক সেখানেও ফুল ফোটে না ফুয়ে । জাতির কোলে শিল্পী এবং শিল্পও ধরা থাকে, দাস দাসী জ্ঞাতি কুটুম্বের মাঝে যে ভাবে থাকে মা ও ছেলে। মাতৃগর্ভ থেকে সস্তান জন্ম নিলে, দাসীর কোলে সে ঘুমোলো, হয়তো মরলো—তেমনি শিল্পীর অন্তরে শিল্প জন্ম নিলে, জাত দাসীর দলে সে নানা লীলা বিস্তার করলে, দাসীর দল আনন্দ পেয়ে বল্লে—ওগো জাতীয় শিক্ষা দীক্ষার দিক দিয়ে আমাদের ছেলেটির জাতের সঙ্গে জাতীয় শিল্প কবিতা ইত্যাদির যেটুকু যোগ তাও বাইরে বাইরে ছোয়াছুয়ি নিয়ে। জাত গেলে জাতির বিপদ গণে, কিন্তু শিল্প গেলে গান বন্ধ হ’লে কবিত। বন্ধ হ’লে চঞ্চল হয় জাতের মধ্যেকার &-চার জনের মন । জাতীয় শিল্পের কত মন্দির ভাঙলো, তার জন্তে চাদা সুল্লে কয়েকজন, জাতীয় কংগ্রেস বসলে, তাতশালী বসলে, পাঠশালা O. P. 14—29