পাতা:বাঙ্গলা ব্যাকরণ - লোহারাম শিরোরত্ন.pdf/১৯৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

১৮৪

বাঙ্গলা ব্যাকরণ।

প্রদীপ্তরশ্মিমান্ সূর্য্য কিরণ বৃষ্টি করিতেছেন। যিনি ধার্ম্মিক তাহারা পরম সুখী। মহাবল নামে এক রাজা ভারতবর্ষে পূর্ব্বকালে ছিলেন। পল্লবিত তরুকোটরে পক্ষী সকল বাস করে। রামটি বড় সুন্দর বালক হয়। আমি মনুষ্য হইতেছে।


বাক্য।

 পরস্পর সাপেক্ষ পদ সমূহকে বাক্য বলে। যথা; রামচন্দ্র, সীতা ও লক্ষ্মণের সহিত বনে গমন করিয়াছিলেন।

 অন্ততঃ দুই পদের ন্যূনে বাক্য হয় না। একটি কর্ত্তৃপদ ও একটি ক্রিয়াপদের আবশ্যকতা করে[১]। অতএব কর্ত্তৃপদ ও ক্রিয়াপদ


  1. কখন কখন এক মাত্র পদেও বাক্য হইয়াছে দেখা যায়। কিন্তু তখন সেখানে কর্ত্তা বা ক্রিয়া দুয়ের এক উহ্য থাকে। যথা; এ কর্ম্ম কে করিল? এই প্রশ্নে “আমি” এই মাত্র বলিলেই আমি করিয়াছি এই অর্থ বোধ হয়। এবং “যাইবে” এই মাত্র পদ দ্বারা তুমি যাইবে এই অর্থ প্রতীতি হয়, সুতরাং আমি ও যাইবে এই দুইটি পদও এক এক বাক্য হইয়াছে।