পাতা:বাঙ্গালা ভাষার অভিধান (প্রথম সংস্করণ).djvu/১৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


\ ভূমিকা । 이 হোএন্‌থ সাg, প্রভৃতি এমন কি ইয়াং চিয়াংও দেখা যায় রায় সাহেব দীনেশচন্দ্র সেন মহাশয় BBB BBS BB BBBBBB SBBB BBS BBBB SBB00 KS BBBBB S শ্ৰীযুক্ত শিবচন্দ্র শীল মহাশয়-সম্পাদিত প্রাচীন কবি দুল্লাভ-মল্লিক-কুত গোবিন্দচন্দ্রগীত গ্রন্থের টাকায় SSBBBB BGS BBSBB BBB BBS BB BBBB BBB BBBBB S BBBB BBBB BBBS এই নামটার প্রথমাংশ ঈষৎস্পৃষ্ট ফারসী প্রে ( ) সঙ্গ লঘু “শ” যুক্ত "যুগান” বং এবং শেষাংশ চোআঙ, ও চুআঙ এর মাঝামাঝি উচ্চারণ করিয়া থাকেন। বিভিন্ন প্রদেশের চীনার বাগযন্ত্রে মূল শব্দের যেরূপ ভিন্ন ভিন্ন উচ্চারণ যুরোপায়ের শ্রবণেন্দ্রিয়ে প্লুত হইয়াছিল, উপরি উক্ত রোমান বানান সমূহ তাহারই শব্দানুযায়ী ( phonetic) রূপ। বঙ্গের অৰ্দ্ধভাগ মুসলমান । মুসলমানদিগের নাম হিন্দু-প্রতিবেশ-প্রভাবে অল্পসংখ্যক হিন্দুবৎ ও কতিপয় ফারসী হইলেও প্রায় সমস্তই আরবী। কিন্তু আরবীর চর্চা সাধারণের মধ্যে তদ্রুপ না থাকায় মুসলমানদিগের মধ্যেই অনেকের সেই সকল নামের অর্থবোধ এবং বিশুদ্ধভাবে উচ্চারণও হয় না। যে সকল নাম বঙ্গের গৃহে গৃহে পরিচিত ও নিত্য কথিত, যথা—সিরাজুদ্দৌলা, তাঙ্গরও বানান "সিরাজ উদ্দৌলা” “সেরাজদ্দৌলা” এমন কি “স্রাজের দোলা” রূপও প্রাপ্ত হইয়াছে। এরূপ অনেক শব্দের উল্লেখ করা যাইতে পারে । যে ভাষার যে শব্দ তাহ। ঠিক সেই ভাষার বিশুদ্ধ উচ্চারণের নিকটতম করিয়া বৈজ্ঞানিক প্রথায় বঙ্গলিপিতে বর্ণান্তরিত করিতে পারিলে, এই শ্রেণীর বানান-সমস্যার মীমাংসা হইতে পারে। বৈদেশিক শব্দের বাঙ্গাল বানানের সহিত সুতরাং উচ্চারণের BBB BBB S BBB BB BBB BBB SBBB BBS BBBBS BBBBSBBBB BBB gg মজ্জিত শিক্ষার একটি প্রধান অঙ্গ। ভিন্ন ভাষা-জ্ঞানের অভাবে এবং জাতীয় ভাষায় প্রাদেশিকতার প্রভাবে একই শব্দের বিভিন্ন উচ্চারণ দেশের সর্ববত্র ভদ্র সমাজেও প্রচলিত আছে, কিন্তু রাজধানী ও তাহার চতুষ্পাশ্ববৰ্ত্তী স্থানের শিষ্টসমাজপ্রচলিত উচ্চারণই সকল দেশে আদর্শ বলিয়া মান্য হয়। আদর্শ স্বীকৃত হয় বলিয়াই যে তাহাকে বিশুদ্ধ বলিয়া মানিতে হইবে তাহা নহে । বিশুদ্ধ উচ্চারণের সাধারণ ও সৰ্ব্বপ্রধান লক্ষণ এই যে, কোন ভাষার শব্দ উচ্চারণ করিবমাত্র সেই ভাষা-ভাষীর কানে না বাজে এবং সে উহা শুনিবা মাত্র স্বীয় মাতৃভাষার শব্দ বলিয়া চিনিতে ও বুঝিতে পারে। কথার স্বরে ও কথন ভঙ্গীতে একটা বিশেষ টান থাকিলে তাহ প্রাদেশিক উচ্চারণ বলিয়া গণ্য হয়। প্রাদেশিক শব্দবাহুল্যে যত না হউক, পশ্চিমবঙ্গ ও পূর্ববঙ্গের কথায় এই স্বরভঙ্গী, উভয়কে অধিক পৃথক করিয়া রাখিয়াছে। আয়াল্যাণ্ড ও স্কটল্যাণ্ডের লুকের মুখে ইংরেজী উচ্চারণ তেমনি লণ্ডনের শিক্ষিত অশিক্ষিত উভয় শ্রেণীর লোকের কানে বাজে। উত্তর মধ্য ও দক্ষিণ চীনের উচ্চারণে একই শব্দ পরস্পরের দুর্বোধ্য করিয়া রাখিয়াছে। চীন দেশের এক কেন্দ্রের লোক অন্য কেন্দ্রের লোকের কথা সহজে বুঝিতে পারে না, কিন্তু, তিন কেন্দ্রের লোকেই লেখা দেখিয়া তাহা বুঝিতে পারে, তাহদের অর্থগ্রহে মতভেদ থাকুে না। চট্টগ্রাম, ঢাকা, মৈমনসিংহাদির সহিত পশ্চিমবঙ্গের প্রাদেশিক-শব্দ-বহুল কথ্য-ভাষা ব্যতীত লিখিত ভাষার আবৃত্তিতে যে গোল, লেখায় তাহা নাই। • সুতরাং বাঙ্গালী ভাষার অভিধানে শব্দের পশ্চিমবঙ্গীয় উচ্চারণ প্রদর্শন উচ্চালণ

  • বঙ্গভাষা ও সাহিত্য পৃ. ৪৯ ।

বঙ্গসাহিত্য-পরিচর, ২য় ভাগ ১৬৯৯, ১৭৩২ পৃষ্ঠা । As