পাতা:বাঙ্গালা ভাষার অভিধান (প্রথম সংস্করণ).djvu/৪০০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কাচা ৩। গুরুজনের মৃত্যুতে উত্তরীয়রূপে পরিধেয় ধুতির প্রান্ত । প্র—কাচ গলায় দেওয়া ৷ ২ ৷ নূতন থও বস্ত্র। প্র—“তথন সাজায়ে মাচা, কলসী কাচা, বিদায় দিবে দণ্ডীর বেশে ।” —রামপ্রসাদ । কাচী | কাচ দ্রঃ। হি-কচারণা (কচালিয়া ধোয় ) ; পছাড়না ( আছাড় দিয়া ধোয় ) । প্রা, বাং—অপ্র ] ক্রি, আছাড় দিয়া বা কচালিয়া ধৌত করা : প্রক্ষালন করা। প্র-কাপড় কাচা । ২ । [সং—কাঞ্চ (দীপ্তি পাওয়া) CE fe : nf경 16 || ei-- কাচন্তি—শোভা পায়। প্র—“বাম দিগে কাচস্তি পরভুর তিধার খন্ত ॥” —শুষ্ঠপুরাণ। ৩ । [ ‘লাজা' র সহচর শব্দ । কাচ ( বেশ ) + আ (ক্রিয় বিভক্তি ; করা অর্থে ) ] বেশবিদ্যাস করা : সজ্জা করা ; ছদ্মবেশ ধারণ করা : পরিধান করা। প্র—“আয়োর মিশালে বুড়ী নানা কাচ কাচে । —কবিক। সাজিয়া কাটিয়া—তুল—ধধিয়া মজিয়া ] সাজসজ্জা করিয়া ; বেশবিদ্যাস করিয়া । প্র—“সাজ সাজ বলিয়া পড়িয়া গেল সাড়া, 2k 2k sk 2k সাজিয়া কাচিয়া সভে হইল বাহির ॥" —জ্ঞানদাস । ৪ । বিণ, প্রক্ষালিত : ধৌত। প্র—কাচ কাপড় । কণচাক্ষ [ কাচ—অক্ষি ( কাচের স্থায় অক্ষি (চক্ষু ) হইয়াছে যাহার, বং) অক্ষি=অক্ষ ] বিণ, কাচের ন্যায় যাহার চক্ষুঃ ৷ ২ ৷ বি, পুং, বকপক্ষী । কাচি, ছি ( সং—কক্ষl=হস্তীর গলবন্ধনরজ্জ্ব। তাহা হইতে মোটা দড়ী—কক্ষার হিন্দী উচ্চাবণ কচ্ছ পরে বাং—কাছি ] বি, স্কুল রজু : মোট দড়ী ৷ ২ ৷ স্থানবিশেষে কাস্তেকে কাচি বলে । কাচিৎ [ কা (কিম্ শব্দ স্ত্রীলিঙ্গে ) +চিৎ অসাকল্যার্থে)। পণ্ডিতী বাঙ্গালায় ব্যবহৃত, অধুনা অপ্র ] অ, কোন এক ( স্ত্রী ) । কাচিম ( ) { কচ,+শিচ,=কাচি ( বন্ধন করান )+ইম (সংজ্ঞার্থে–ইমন ) ] বি, পুং, দেবকুলোণ্ডব ভঞ্জকবৃক্ষ । ২ । কচ্ছপ : ( কাছিম দ্রঃ) । কাচ কা [ কচ–হইতে ? ] বি, সর্ষপের শুষ্ক ডাটা । কাচতি [ কাস্তের অনুকরণে ? ] ৰি, অস্ত্র বিশেষ ; দী-বিশেষ । কাচ্চা [কঁাচ্চ দ্রঃ । সং—কনচ ধাতু অল্পীভাবে বা অল্পীকরণে—ওজনের ক্ষুদ্র মান-বিশেষ ] ছটাকের চতুর্থাংশ। কাচাবাচচ [কাচ্চা (হি—কচ্চা—সং—কষণ -कठेि ; थ*क) सांफ्रां (श्-िविक्रl=मखांन وهو (ك সং—বৎস) বহুবচনার্থক] বি, কচি ছেলে পুলে ; ছোট ছোট ছেলে মেয়ে ; সস্তান সন্ততি । কাছ (ছ) [ প্রাকৃ—কচ্ছ : সং—কক্ষ ( পার্থ) তাহা হইতে কুল, কিনারা, সীমা। তুল— “কাছ করণ”—জমির মাপ করণ (সিন্ধু দেশে)] বি, নদীর কূল : তীর। ২। নিকট সমীপ। ৩ । [ কাছ দ্রঃ ] পরিধেয় বস্ত্রের দ্বিতীয়াঞ্চল ; কচ্ছ । বীরকাছ—মালকোচ । প্র—“বীরকাছ পরিধান, কোপে বীর কম্পমান, কনক টোপর শোভে শিরে ।” --কবিকঙ্কণ । ৪ । গাত্রাবরণ : অঙ্গাবরণ ৷ প্ৰ—“সদা দুর্গ দুর্গ বলে, দুর্গ নামের কাছ করেছি।" —রামপ্রসাদ । ৫ । ভোল ; কপটবেশ । কাছটি (হি—কছৌটি সং—কচ্ছোটিক। কাচ দ্রঃ) বি, মালকোচ : কৌপীন। কাছটিয়া ক্রি-বিণ, কাছটি করিয়া : মালকোচা করিয়া । প্র—“কত রাজা রাজপুত্র উদ্যত হইয়া । ধনুক তুলিতে যায় বস্ত্র কাছটিয়া।” –কৃত্তিবাস। [ দ্রঃ-পূর্বে বাঙ্গালা দেশে কাছটি বা কাছোট করিয়া কাপড় পরার প্রথা ছিল । হিন্দুস্থানে এখনও আছে। বাঙ্গালী স্ত্রীলোকেরাও কাছটি করিয়া কাপড় পরিত। দক্ষিণ ভারতে এখনও পরে । কাছটি স্থলে বঙ্গে এখন কাছ ( লম্বা কাছ ) দিয়া কাপড় পরিবার প্রথা চলিয়াছে । স্ত্রীলোকের মধ্যে সে প্রথা উঠিয়া গিয়াছে ] । কাছা [সং—কক্ষী—বস্ত্রাঞ্চল; কচ্ছ (হেমচন্দ্রে কচ্ছ=পরিধানাঞ্চল) : পা—কচ্ছ । "ইখীনং মজ ঝবন্ধে চ পকোটুঠে কচ্ছ বন্ধনে মেঘমলায়াং মতা কচ্ছা কচ্ছে * অভিধানপ্লদীপিকা । কাচ ] বি, পুরুষের পরিহিত বস্ত্রের শেষভাগ। পরিধেয় বস্ত্রের যে অংশ কটিদেশের পশ্চৎ ভাগে গোজা থাকে। ২ । [ কাছটি দ্র: ] হস্তী কক্ষের চৰ্ম্মরজু। কাছ কেঁচা দিয়ে কাপড় পরা— পুরুষের পরিধেয়বস্ত্রের সন্মুখভাগ কুঞ্চিত করিয়া নাভিদেশের নিকট গুজিয়া এবং পশ্চাৎভাগ কুঞ্চিত করিয়া দুই পায়ের মধ্য দিয়া টানিয়া তাহার বিপরীত দিকে গুজিয়া কাপড় পর । কাছা আলগা—বিণ, চিলা ; শিথিল ; অসাবধান । প্র—এমন কাছা আলগা লোক দেখা যায় না। কাছা-ঢিলা— কাছ আলা৷ দ্রঃ । অসতর্ক ; অসাবধান ; বিশৃঙ্খল ; নিস্তেজ ; কমজোর। প্র—“নীলে সকল জমি নিলে জমিদার সব কাছা-টিলে।” —ঈশ্বর গুপ্ত । কাছা-ধরা—লেজ ধরা দ্রঃ স্বাধীনভাবে কাজ করিবার শক্তি রহিত ; পরের সাহায্যপ্রার্থী। ২। উপাসক ; তোৰামোদকারী ; চাটুকার।

  • k”

কাছা কাছাকাছি [ কাছ দ্রঃ ] বিণ, একের কাছে অস্ত ; সন্নিকট : নিকটানিকটি ; নিকটবৰ্ত্তী । কাছাড় (ড় ) [ সং—কচ্ছ, হি-কাছার } সিন্ধী “কাছে|” নদীর পলী পড়া জমি ] दि, मभूज़ ब नौब्र उफ्रेंडूमि : नीब दून : জলের প্রান্তভূমি ; নিম্নজলভূমি ৷ ২ ৷ প্রদেশবিশেষ: আসামপ্রাস্তবত্তী অংশ। ৩ । [ হি—পছাড়—বাং—আছাড় ] আছাড় ; উৎক্ষেপণ ; আখাত ; নিক্ষেপ । প্র— "বড় বড় পাথর কাছাড় মারে লয়ে । বিস্তর প্রস্তর গেল চুরমার হয়ে ॥” –শিবায়ন। আছাড় কাছাড় করা—হাত পা আছড়াইয় গড়াগড়ি দেওয়া ; দৈহিক অস্থিরতা দ্বারা কাতরতা বা ব্যাকুলত প্রকাশ করা । (২) ঐরূপে আবদার করা ( শিশু পক্ষে )। কাছান (কাছানো ) •কাছ দ্রঃ । কাছ+ আন ( আওয়ান—আওন সংক্ষেপে ) হি— নগচান| ] ক্রি, কাছে আসা বা গমন করা : নিকটবৰ্ত্তী হওয়া : ঘনান । কাছারি, রী (হি-কচহরী (কচকচ, বাদবিবাদ ) হরী ( হারক )—কচকচি বা বাদী প্রতিবাদীর বিচারস্থান ] বি, বিচারালয়, আদা&R5 : Count of Justice. কাছারি করা—আদালতে নিত্যনিয়মিত উপস্থিত হইয়া তথায় কাৰ্য্যনিৰ্বাহ করা ; বিচার করা । কাছারি ঘর করা— মকদ্দমা চালাইবার জন্য আদালতে আন৷ গোনা করা ; খর হইতে আদালত এবং আদালত হইতে ঘর এইরূপ, যাতায়াতের কষ্ট স্বীকার করা। কাছারি খোলা— আদালতের কাজ আরম্ভ হওয়া । কাছারি বস]—মকদ্দমার শুনানি ও বিচার আরম্ভ হওয়া : কাছারি ওঠা, শেষ হওয়— আদালত বন্ধ হওয়া ; মকদ্দমার শুনানি ও সেদিনের মত বিচার স্থগিত থাকা । কাছারি বরখাস্ত হওয়—আদালতের বিচার-সভা ভঙ্গ হওয়া। কাছারি বন্ধ হওয়া— পৰ্ব্বোপলক্ষে অথবা গ্রীষ্মাীি অবকাশে আদালতের কার্য্য বন্ধ হওয়া । কাছারি, রী [সং—কাৰ্য্যালয় ; হি—কচহর । “Kachahri, Kachahree, Kacheri, Kachhahari, Kachhari, Kacheli, corruptly Cutcherry—A court, a hall. an office, the place where any public business is transacted ; also Marathi the business carried on there, or the people assembled”--Wilson Bombay. “Court of justice ; office” — U. P ] বি, কাজকর্মের স্থান ; দপ্তর ; আপিল। জমিদারী কাছারি—কোণ জমিদারের স্বীয় জমিদারী সংক্রান্ত কাজকর্মের স্থান। সরকারী কাছারি—গবর্ণমেন্টের দপ্তর।