পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৫৬৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মহারাজ যতীন্দ্রমোহন । ক্ষীণতর কটি তার, বিপুল নিতম্বভাব, গমনেতে দোলে ঘন, নিজ গরিমায়। যুবজন বধিবরে, বিধি বা গড়েছে তারে, ইঙ্গিতে মদন যার, মোহ হয়ে যায়। থাক্ষাজ—একতাল। কব কি তার রূপে তুলন। বিনোদিনি ধনি ওকথা তুলন। সে যে রূপবন, হেরি সে বস্থান, লগে ফুলবাণ, জ্ঞান থাকে না। হেরিয়ে মু-বর্ণ হুবর্ণ লুকায়, হরিতাল যত হারিয়ে পলায়, হরিদ্রা চম্পক আছয়ে কোথায়, এসব হেরিতে মন চাহে ন ॥ নয়নের শোভা চেরে শতদল, লজ্জিত হইয়ে লয়ে নিজ দল, জলে করে বস, স্থলের নিবাস, অভিলাষ করে না । সুধাকর জিনি বিমল বদন, সেরূপ হেরিয়ে বিষাদে মদন ; অনঙ্গ হইয়ে করয়ে রেদন, তনু প্রকাশিতে তাই পরে না । বারোয়া-খেম্ট। কায় কব দুখের কথা, মনের ব্যথা মনই জানে। অবলা কুলের বালা, কত জ্বালা সয় গে। প্রাণে ॥ বিষম প্রতিজ্ঞা করি, অন্তরে গুমরে মরি, লাজে প্রকাশিতে নারি, দিবানিশি ধায় রোদনে । যৌবনের দুঃখভর, সহিতে ন পারি আর । না জানি ব| বিধাতার, কত আর আছে মনে ॥ ੋਨ਼ਗ਼ਾ: সাহান!—বfiপতাল । আজ কি আনন্দ সখি, সব দুখ মিটিল। কামিনীর মত কান্ত এত দিনে মিলিল । হেরি রূপ দু'জনার, গুণ মানি বিধাতার, উভয়েরি তরে বুঝি, উভয়েরে গড়িল । দেখি শোভা রতিপতি, হইয়ে মোহিত আতি, রতিসহ এ অবধি, দাস হয়ে রহিল। fίπανηψ ל 83 খাম্বাজ-ঝাঁপতাল । কেন বল দেখি বিধুমুখি ভাব অকারণ। যেথা পাব মিলাইব নাগর মনোমতন। বাতাসে পাতিয়ে ফাদ, ধরি গগনের চাদ; কি ছাঁর নগর ধনে, ভুলাস রমণী-মন। ত্বরিতে মিলাব আনি, সে নাগর গুণমণি, তবে সে জানিবে ধনি, হীরে মালিনী কেমন ॥ জলtং ঝিঝিট-কাওয়ালী । প্রণয় পরম নিধি, বিধি না স্বজিত । অসার সংসারে তবে কি মুখ থাকিত ॥ স্বজন মৃ জন মনে, পরস্পর সম্মিলনে, মুরপুর-সুখ হয়, ভবে অনুভূত। রমণীর হৃদয়-ধন, মন তাহে সমৰ্পণ, জীবন মরণ তার সব প্রেম গত ৷ খাম্বাজ-ধেমূট। নাগর মনের মত মিলিল ভালো। রূপে জুড়ায় আঁখি ভুবন আলো ॥ কমল মধুকণা অলি পেলে না, ভাগ্যগুণে বুঝি ভেকেরি হোলো ॥ Amamag পিলুখাম্বাঙ্গ—পোস্ত । কি আর আমাদের আনন্দের সীমা আছে। এ চেরে ধত্তে পেরে, প্রাণের তরে ভয় ঘুচেছে । চল যাই ত্বর কোরে, দিব চোর দরবারে, শিরপা বাধবো শিরে,মনের মুখে রাজার কাছে। காம் இது ললিত —মধ্যমান। কহিব কি প্রাণ-সখি, কহিতে বরিযে আঁখি। যে জন পেড়েছে ধরা, তুমি যার মুখে মুখী ॥ যুগল কমল করে, রেখেছে বন্ধন কোরে, বিরিয়ে যায় বুক, সে মুখ মলিন দেখি। αúαπmωμw ভৈরবী—মধ্যমান। কি শুনালে প্রাণসখি, নগর পড়েছে ধরা। তবে তো আমার আর, বিফল জীবন ধরা।