পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৬৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গিরিশচন্দ্র ঘোষ। মত্ত ভৃঙ্গ ধায়, সুখে পিক গায়, হের কুঞ্জবন মুখে ভেসে যায়; রাধা অভিলাষী, রাধা বলে বাণী, বাশী ডাকে তোরে, উঠ লো কিশোল। ভৈরেHমিশ্রিত-একতাল। | কিশোরী-প্রেম নিবি আয়, প্রেমের জুয়ার ব’য়ে যায় । বইছে রে প্রেম শতধারে, যে যত চায়ু তত পায়। প্রেমের কিশোর প্রেম বিলায় সাধ করি, | রাধার প্রেমের বল রে হরি, প্রেমে প্রাণ মত্ত করে, প্রেম-তরঙ্গে প্রাণ নাচয়ু রাধার প্রেমে হরি বলি আয়ু ॥ খাম্বাজ-মিশ্রিত—একতালা । হরি মন মজীয়ে লুকালে কোথায়ু । আমি ভবে এক, দওহে দেখা, - || কলশশী বাজালে বাণী, ছিগম গৃহবাসী, কলে উদাসী, কুল ত্যজে হে অকুলে ভাসি, হাবিহারী কোথায় হরি, পিপাসা-প্রাণ তোমায়ু চায় । কামোদ-মিশ্র—একতালা । ডাকে হে পতিত তোমায়, পতিতপাবন পুরাও সাণ । দীনের ঠাকুর কোথায় গেীরচাঁদ । নামের গুণে এসে গুণধাম হৃদয় ভরি হেরি হরি, ত্রিভঙ্গিম ঠাম, নাম ভরসা করি আশা পুরবে মনস্কাম, আমার মন রসেন, প্রেম জানে না, বঁধে পেতে প্রেমের ফঁাদ । রাঙ্গাচরণ দুটি চই, মধুর গেীর নামটী যেন পাই, রাইকিশোরীর দোহাই, হরি তোমার ধোপাই, | ·●●@ আমার সংশয়ে প্রাণ সদাই দোলে, দাওহে প্রেম-মুধার স্বাদ ॥ লুম-খাম্বাজ–একতাল।। আজ ধর্লো লে! সই মনচোরা আমার । নয়ন-জলে গেঁথে মাল, বঁধুর গলায় দিব হার। সইলো সাধের কালাচাদে, প্রাণ-মন দিছি সাধে, আমার চিকণকালা ভালবাসি কালা রাধার প্রাণধার ॥ কথা কইবো লো কত, বলবোর্তারে কেঁদেছি যত, দেখ বে। যদি হতে পারি তার মনের মত, সে আমায়ু হয় বা না হয়, আমি তো সই হব তার । আমার আমি রব কি সই আর ॥ Φπαúnυ"-μπο ভৈরো-ঝিল্লার-একতলা । কর পর নেয়ে এবার, তুফান ভারী যমুনায়। ন হেরি কুল-বিনার, ঢেউ দেখে সই প্রাণ শুকায় ॥ তরঙ্গ রঙ্গ করে, আতঙ্গে প্রাণ শিহরে, বুঝি সই কপট নেয়ে, পাথরে ভাসায়। এসে সই পরের কথায়, কুল ত্যজে কি হ’ল দায় ॥ টোরী-ভৈরবী-একতালা ! প্রেমের রাজা কুঞ্জবনে কিশোরী। প্রেমের দ্বারা আছে দ্বারে,করে মোহন বঁশরী ॥ বঁাশী বলছেরে সদাই, প্রে । বিগাবে কল্পতরু রাই, কারু যেতে মান নাই, ডাকৃছে দ্বারী,—‘আয়ু ভিখারী, জয় রাধা নাম গান করি । রাধা বলে নয়ন-জলে ভাসে প্রেমের প্রহরী ॥ সরফর্জার-মিশ্র-কাওয়ালী । কি দোষে ঠেলিলে রাঙ্গ পায়। তুমি তে নিদয় নহ, প্রাণসখী প্রাণ খাধ ।