পাতা:বিবিধ প্রবন্ধ (ভূদেব মুখোপাধ্যায়) প্রথম ভাগ.djvu/৫৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

বিবিধ প্রবন্ধ । e 8న বনদেবী রামকে অতিক্রান্ত বিষয়ে ধৈর্য্যুবলম্বন করিতে অনুরোধ করিলে রাম বলিলেন— কিমত্রোচ্যতে ধৈৰ্য্যমিতি । দেব্য শূন্তস্য জগতে দ্বাদশঃ পরিবৎসরঃ। লুপ্তং সীতেতি নামাপি ন চ রামো ন জীবতি ? ॥ •ধৈৰ্য্যের কর্থ কি বলিতেছ? এই সীতা শূন্ত জগতে দ্বাদশ বৎসর অতিক্রান্ত হইল ; সীতার নাম পৰ্য্যন্ত লুপ্ত হইয়াছে। কিন্তু রাম অদ্যাপ বাচিয় আছে! অর্থাৎ রামের পক্ষে ইহা অপেক্ষ ধৈৰ্য্যের বিষয় আর কি হইতে পারে ? ' পাঠক এ স্থলে একটি প্রকৃত বিবরণ গুমুন। কোন মহাপুরুষ আপনার সহধৰ্ম্মিণী-বিযুক্ত হইয়া পঞ্চবিংশতি বৎসর জীবিত ছিলেন। মৃত্যু কালে তিনি গঙ্গাতীরে সমানীত হইলে বলিয়াছিলেন, পচিশ বৎসর ধরিয়া যে চিতাগ্নিতে দগ্ধ হইতেছিলাম, আজিকার চিতায় তাহ নিবিবে। ভবভূতি রামের মুখে যে কথা দিয়াছেন, তাহ এই প্রকৃত কথারই অনুরূপ। রামের এরূপ মৰ্ম্মভেদী বাক্যশ্রবণে সীতার মনে সহানুভূতি অবশুই এতদূর বৃদ্ধি পাইবে যে, তাহাতে তাহার মনে যেন একটু ভ্রম জন্মিতেও পারে। রাম যে র্তাহার প্রতি অন্তায় আচরণ করিয়াছেন বলিয়াই দুঃখভোগ করিতেছেন, এ ভাবটি সীতার মনে আর স্থান পাইবে না। রামও যেমন মধ্যে মধ্যে অতি দুঃখে কাতর হইয়া সীতার প্রতি দোষারোপ করিয়া তাহাকে ‘নিষ্কৃরুণে ‘কোপনে "চণ্ডি” প্রভৃতি নির্দয়শীলতাব্যঞ্জক সম্বোধন করিয়া থাকেন, রামহৃদয়বাসিনী সীতা নিজেও যে কখন কখন সেইরূপ আপনার প্রতি দোষারোপ করিবেন, ইহা আশ্চর্য্যের বিষয় নছে। প্রত্যুত আমারই জন্য ইনি এত কষ্ট পাইতেছেন, ভাবিয়া কখন কখন সীতার হৃদয়ে আত্মগ্লানি জন্মিবে। কবি ছায়াময়ী এবং তমসার মুখ দিয়া ঐ ভাবই ব্যক্ত করিলেন । ছায়াময়ী বলিলেন— ‘