পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/১৯২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


› ዓ8 বিভূতি-রচনাবলী ক্ষেমদাস বরেন—তুমি চিনতে পারলে না ? এটা বৃন্দাবন, গোপাল-মন্দির । পুপ বল্লে—আর ইনি বৈষ্ণৰ কৰি ক্ষেমাস— কেবলরাম থতমত খেয়ে ক্ষেমাসের পায়ে সাষ্টাঙ্গ হয়ে প্রণাম করলে। তারপর করুণাদেবীর সামনে ওকে এনে ফেলতেই ও আরও আড়ষ্ট ও কাচুমাচু হয়ে গেল। করুণাদেবী রহস্য করে বল্পেন—তোমার নাতনীর দৌলতে স্বৰ্গ পাবে তুমি । কেবলরামের চোখ ধাধিয়ে গেল এই দুই দেবীর অপরূপ রূপের জ্যোতিতে। সে হাতজোড় করে বল্লে—স্বৰ্গ তো এখানে । আমার মত পাপী যে বৃন্দাবনে এসে আরতি দেখেচে, আপনাদের মত দেবী, এদের মত মহাপুরুষের দেখা পেয়েচে–আর তো কিছু বাকি নেই স্বর্গের । পুষ্প ধমক দিয়ে বল্পে—এখন ছেড়ে দিলে আবার কুডুলে-বিনোদপুরের দোকানে গিয়ে বসবে তো ? আর মিথ্যে কথা বলবে । কেবলরাম জিভ কেটে বল্লে—আর না । -टैिक ? —হঠাৎ ছাড়তে পারবো না—মিথ্যে কথা বলে কি হবে । কোথায় যাই বলে তো সন্দেবেলাটা ! —কেন, এই গোপাল-মন্দিরে এসে আরতি দেখবে রোজ । কবি ক্ষেমদাস রোজ এখানে এ-সময় থাকেন, তোমায় যত্ন করবেন দাজু । —কেউ কিছু বলবে না ? —ন, দেবমন্দিরে সবারই অধিকার । যখনই তোমার দেবদর্শনে স্পৃহা জেগেচে, বুঝতে হবে, তখনই তুমি উচ্চতর স্তরের জীব হয়ে যাবুে ! ইচ্ছা মাত্রেই সিদ্ধি। চলো যমুনার ধারে দাড়িয়ে দেখো— ওরা চীরঘাটের কাছে যমুনার তীরে এসে জ্যোৎস্নালোকে কিছুক্ষণ বসলো। ওদের সঙ্গে সঙ্গে করুণাদেবী ও প্রণয়দেবীও এলেন । কেবলরাম সরল লোক, ওর মনে কেমন এক ধরনের ভক্তির উদয় হোল। যমুনার দিকে চেয়ে ওর চোখ বেয়ে জল পড়তে লাগলো। করুণাদেবীকে বন্ধুে—ম, আমার কি পুণ্য ছিল পূর্বজন্মের ? বৃন্দাবন, যমুনার তীর, আপনাদের মত দেবীর দেখা পাওয়া—আজি আমার হোল কি তাই ভাবচি । করুণাদেবী বল্পেন—কেবলরামকে রেখে এস পুষ্প, তারপর আমাদের পৌঁছে দেবে— পুষ্প হেসে বক্ৰষ্টিতে অদ্ভুতভাবে চেয়ে বলে-আমি পৌঁছে দেবো আপনাদের ! কেন ঠাট্টা করেন বলুন তো ! - © ফেরবার পথে কেবলরাম বল্পে—তোমায় কি যে বলি দিদি । তুমি সাক্ষাৎ দেবী, নইলে এত দয়া ! যেখানে নিয়ে গিয়েছিলে, আমার চোঁদপুরুষের ভাগ্যি নেই সেখানে যাই। একটা ৰখা দিদি বলছি। আমার নাতি রামলাল আজ হু বছর হোল এখানে এসেচে পৃথিবী থেকে। তোমায় বলতে লঙ্গ হয়, সম্প্রতি রম্বলপুরের এক বাগদী মাগীর পিছু পিছু ঘুরচে ছ'মাস। সে যদি জল আনতে যায়, ও তার পিছু পিছু ধায় ; সে যদি রান্নাঘরে রাখে, ও পাশে বসে