পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/২১১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দেবযান సె\రి —জানি, সে বলে বার বার দেহ ধারণ করা মুক্তির পথে বাধা । সে বলে, ও থেকে উদ্ধার নেই। সেই একই জীবনের পুনরাবৃত্তি, চক্রপথে উন্ধেগুহীন গতাগতি । সেই একই লোভ, তৃষ্ণা, অহঙ্কার নিয়ে বার বার অসার জন্ম ও মরণ । এই তো ? * –কথাটা কি মিথ্যে ? —না । মানি । কিন্তু সে কাদের পক্ষে ? যার জীবনের উদ্দেশুকে খুজে পায়নি বা ভগবানের দিকে চৈতন্য প্রসারিত করেনি তাদের পক্ষে । যারা জানে না স্কুল দেহের পরিণাম ধুমভন্ম নয়, জন্মের পূর্বেও সে ছিল, মৃত্যুর পরেও সে থাকবে, ভুলোকে শুধু নয়, ব্ৰহ্ম থেকে জীবে নেমে আসতে যে সাতটি চৈতন্তের স্তর আছে, এই সাত স্তরের প্রত্যেকটি স্তরে এক একটি লোক, সে এই সব লোকেরই উত্তরাধিকারী, ভগবানের সে লীলা-সহচর । যারা এ কথা জানে না, জানবার চেষ্টা করে না, জেনেও গ্রহণ করে না বিষয়ের মোহে—তাদের পক্ষে সন্ন্যাসীর কথা পরম সত্য । কিন্তু আমার পক্ষে নয় । পুষ্প একমনে শুনছিল । এই পবিত্র গ্রহের তপোবনসদৃশ অরণ্যকাস্তারে এ দেশের ঋষিকবিরা যেখানে নিদ্রাহীন গভীর রাত্রে ভগবানের স্তবগাথা রচনা করেন—এ গ্রহের উপনিষদ জন্মলাভ করে তাদের হাতে –এই স্থানই ক্ষেমদাসের উপদেশ উচ্চারিত হবার উপযুক্ত বটে। পুপ ব্যগ্রস্বরে বল্পে—বলুন, দেব, বলুন— ক্ষেমদাস আবার বরেন—তমেব বিদিত্বাতিমৃত্যুমেতি—যে তাকে জেনেচে সে দেহধারণ করেও মুক্ত, যেমন দেখেছিলে সন্ন্যাসীর গুরুভ্রাতাকে, বন-মধ্যস্থ সেই সন্ন্যাসীকে । যাদের চৈতন্য জাগ্রত হয়েচে, দেহ থেকেও তার জীবন্মুক্ত । ভগবানকে যারা ভালবাসেন মনপ্রাণ দিয়ে, দেহধারণ করেও তারা জীৰন্মুক্ত। তারা জানেন এই বিশ্বের সমস্ত গ্রহ, সব তারা, সব বসন্ত, সব জীবলোক আমার । আমি এদের মাধুর্য উপভোগ করবো । তার সৌন্দর্যের স্তবগান রচনা করে যাবো। আমি তার চারণ-কবি । আমি ছাড়া কে গান গাইবে এই বিশ্বদেবের অনন্ত সৌন্দৰ্য-শিল্পের ? তার গান গেয়েই যুগে যুগে অমর অজর হয়ে আমি বেঁচে থাকবে। শত জন্মের মধ্যেও যদি তার সেবা করে যাই আর আসি আমার তাতে ক্ষতি কিসের ? ' ক্ষেমদাস চুপ করলেন । পুষ্প বল্লে—এ দেশের সেই কবিকে দেখা যায় না ? - —এতক্ষণ সে ছিল এখানেই। সেও ভগবানের চারণ-কবি। এই প্রকৃতির সৌন্দর্যের সে স্তবগীতি রচনা করে। সে এখন ঘুমিয়েচে । —বিবাহিত ? o - —এ দেশের নিয়ম বুঝি না। স্ত্রীলোকদের অদ্ভূত স্বাধীনতা এখানে। তারা যার ঘরে যতদিন ইচ্ছা থাকে। আবার যেখানে সত্যকার প্রেম আছে, সেখানে পৃথিবীর স্বামী-স্ত্রীর মত আজীবন বাস করে। আমাদের কবির সঙ্গে তিন-চারটি নারী থাকে—কিন্তু তারা কেউই পৃথিবীর তুলনায় স্বন্দরী নয়। এদেশের মেয়ের স্বত্র নয়। অবর্ত নারী তিনটির সঙ্গে ওর কি সম্পর্ক জানি না। এদেশে হয়তো তাতে দোষ হয় না। ম্বে দেশের ষে নিয়ম । & تا دسامبیا .f A. g ...