পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/২১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


>。8 বিভূতি-রচনাবলী ওরা কিছুদূর গিয়ে দেখতে পেলে বনের মধ্যে গাছতলাতে দু-তিনটি লোক নিদ্ৰিত । ক্ষেমদাস বল্পেন—ঐ স্থাখে। কবি গুয়ে। ঐ পাশেই তিনটি নারী । পুষ্প আশ্চর্য হয়ে বয়ে গাছতলাতে কেন সবাই ? —এখানে লোকের ঘরবাড়ী নেই পৃথিবীর মত । ওদের দেহ অন্য ভাবে তৈরী। রোগ নেই এখানে, হিংস্র জন্তু বা সৰ্প নেই। দেহের কোনো ক্ষতি হয় না । অল্প আয়ু বলে ঘরবাড়ী করে না কেউ । —তবে মরে কিসে ? —এদের স্বেচ্ছামৃত্যু ৷ জ্ঞানী ও নিম্পূহ আত্মা কিনা! নির্দিষ্ট সময় অস্তে যেদিন হয় এরা মৃত্যুর জন্তে প্রস্তুত হবে । মন যেদিন এদের তৈরী হবে সেদিন স্বেচ্ছায় দেহত্যাগ করবে। মৃত্যুতে এর শোক করে না । এরা জানে মৃত্যু দেহের পরিবর্তন মাত্র । —পুনর্জন্ম ? –এখানে যার জন্ম নেয়, তারা অনেক জন্ম ঘুরে এসেচে। পৃথিবীতে বহু জন্ম কেটেচে এদের । শেষ জন্ম এখানে কাটায় । তার পরেই মহুর্লোকে চলে যায় একেবারে, আর ফেরে না। কিন্তু তুমি একটা কথা বোধ হয় জানো না—পৃথিবীর চেয়ে নিকৃষ্টতর গ্রহও অনেক আছে। নিম্ন-শ্রেণীর আত্মাদের পুনর্জন্ম অনেক সময় ওই সব নিকৃষ্টতর লোকে হয়। —সে সব স্থান কি-রকম ? — একটাতে তোমাকে এখুনি নিয়ে যেতে পারি। চোখেই দেখবে, না কানে শুনবে ? তবে একটা কথা । সে সব দেখে কষ্ট পাবে । মেয়েমানুষ তুমি, সে সব গ্রহলোক দেখলে তোমার মনে হবে ভগবান বড় নিষ্ঠুর । চক্ষের পলকে ওরা একস্থানে এসে পৌঁছলো । সে স্থানটির সর্বত্র উষর মরুভূমি ও কৃষ্ণবর্ণ বস্তুর ভূপ। কিন্তু সে স্তুপ প্রস্তর নয় -ত কি, পুপ জানে না। উলঙ্গ বিকটদৰ্শন অর্ধর্মতৃপ্তাকৃতি জীব দু’একজনকে সেই কৃষ্ণবস্তু কূপের ওপর বসে থাকতে দেখা গেল। মাঝে মাঝে তারা উঠে মাটির মধ্যে হাত দিয়ে গর্ত খুড়ে কি বার করচে ও পরম লোলুপতার সঙ্গে মুখে পুরচে । ক্ষেমদাস বল্লেন— চলে এখান থেকে । ওরা কীটপতঙ্গ খুজে খাচ্চে । ওই ওদের আহর । ওই ওদের আহার সংগ্রহ রীতি। একজনের বস্তুতূপে আর একটি জীব যদি আসে, তবে দুই জীবে মারামারি করবে। এ ওকে মেরে ফেলবার চেষ্টা করবে। এ জগতে স্নেহ, প্রেম, ভক্তি, ভালবাসা, দয়া, সেবা, ন্যায়বিচার, শিক্ষা, সংগীত কিছু নেই। আছে কেবল দুর্দান্ত আহারপ্রচেষ্টা । জীবে জীবে কলহ । e পুষ্প বল্লে— চলুন এখান থেকে । ইপি লাগচে । কি জড়পদার্থে গড়া এ দেশ, প্রাণ যেন কেমন করে উঠলো । এও কি ভগবানের রাজা ? উঃ– ক্ষেমদাস হেসে বল্পেন— এখনও দেখোনি। চলে। আরও দেখাই—এর চেয়েও ভয়ানক স্থান দেখবে। যেখানে পিতামতি পুত্রকন্যার সম্বন্ধ পর্যন্ত নেই। যেখানে—না সে তোমাকে বলব না! পুষ্প অধীর ভাবে বল্পে-কেন আমাকে এখানে নিয়ে এলেন ? উঃ—বলেই সে ঝরঝর করে