পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/২৪৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


છેક ਵਿਭਿ-ਕ਼ਰੀ কাচতে । আমি বল্লাম—ও-সব কাজ আমায় দাও নস্বমামা । আমি তোমায় করতে দেবো না । o & জোর করে সেগুলো তার কাছ থেকে নিয়ে নিজে কেচে দিলাম। আমার চোখের সামনে ও-সব খাটুনি খাটতে দেবো না ওকে । বল্লাম—হরি কলুর বাড়ী গোয়াল-পরিষ্কার আমি করে দেবো । —না পাচী, লক্ষ্মীটি, লোকে কি বলবে? —আমি গ্রাহ করিনে । —আমি করি । —মিথ্যে কথা, তুমি কিছু গ্রাহ কর না, কলুবাড়ী বাসন মাজচো অথচ– –পাচী, এ সব তুই বুঝবিনে । ওসব করিসনে কক্ষনে । ওর কথা সাদ্যাল জ্যাঠাকে বলতে তিনি বড় ব্যস্ত হয়ে পড়লেন ওকে দেখবার জন্তে । হরি কলুর বাড়ীর পেছনে একটা পুকুর, পুকুরের চারিধারে আম কঁঠালের বাগান। তারই একটা গাছতলায় দেখা গেল ও চোখ বুজে বসে । সেই থেকে সাঙ্গাল মশায়ের সঙ্গে ওর ভাব হয়ে গেল । যোগবাশিষ্ঠের দলে ভিড়ে পড়লো । সাঙ্কাল জ্যাঠা বলেন—ছেলেটি শুদ্ধসত্ত্ব । * শীতের প্রথমে কলুপাড়ায় কলেরা দেখা দিলে । একদিনে আঠোরটার কলেরা হলো, পাঁচটা মরে গেল। নস্থমামা কি ভীষণ পরিশ্রম করে সেবা শুরু করলে । হরি কলুর ছোট ভাই ওর সেবাতেই নাকি বেঁচে উঠলো। রাত্রে ঘুমোয় না। নিজে হাতে রোগীদের গা ও ৰিছানা পরিষ্কার করে । o কলেরায় কলুপাড়া উজোড় হয়ে গেল—ধরলে কিছু দূরে মুচিপাড়াকে । ভয়ে তখন মুচিপাড়ার অনেক লোক পালিয়েছে। বুড়ো হিরু মুচি একদিনের অস্বখে মারা গেল। কিন্তু তখন এমুন ভয় হয়ে গিয়েচে সকলের, মড়া ঘরের মধ্যে পড়ে রইল সারাদিন, কেউ ফেলতে চায় না। সন্ধ্যের পর নম্বমামা এক গিয়ে ঠ্যাঙে দড়ি বেঁধে ফেলে দিয়ে এল খালের ধারে শ্মশানে । যোগবশিষ্ঠের আসরে একথা শুনে আমি উত্তেজিত হয়ে উঠলাম। আমিও যাবে। নক্ষমামাকে সাহায্য করবো । লোকে যে যা বলে বলুক গে। জ্যাঠামশায় হেসে বল্পেন—ম, এ কাজ তোমার নম্বমামার । তোমার জন্তে নয়। সব কাজে অধিকারী-ভেদ আছে । - —কেন ? আমার অধিকার জন্মায়নি ? —তোমার বুড়ো শাশুড়ী মরে গিয়েচে, জগতে আরও কি বুড়ো হাবড়া নেই ? —আপনি বলুন নম্বমামাৰে । ও আমাকে নিতে চায় না কোন কাজে। আমি যাবে। জ্যাঠামশায় । - এই অবস্থায় হঠাৎ একদিন নম্নমাম গ্রাম ছেড়ে চলে গেল। কলুপাড়ার সবাই হার হার