পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/২৯১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


উপলখণ্ড ૧૭ কাপড়খানা সে বাহির করিয়া পরিল ও মেয়েমহলে দিগ বিজয়ের লোভ সামলাইতে না পারিয়া ব্রেসলেট-জোড়াও হাতে পরিয়া খাইতে গেল। তাহার ইচ্ছা নিজেকে লোকের চক্ষে বড় করা। আমাদের দেশের শিক্ষিত পুরুষদের জ্ঞান ও বিষ্ঠা আছে, তাহারা লোকসমাজে তাহাই দেখাইয়া বেড়ান ; কিন্তু বেচারী মেয়েদের সে সম্বল নাই, কাজেই তাহারা শুধু গহনা দেখাইয়া বড় হইতে চাহে । সন্ধ্যার একটু পরে বীণাপাণি নিমন্ত্রণ হইতে ফিরিয়া আসিল । একাদশীর জ্যোৎস্ন। অল্প অল্প উঠিয়াছে, বাড়ীতে কেহ নাই—নীপুকে রায়গৃহিণী ভালবাসিতেন, রাত্রের জন্য তাহাকে রাখিয়া দিয়াছেন—সকালে লোক দিয়া পাঠাইয়া দিবেন। বীণাপাণি ভাবিল স্বামী এখনও বাড়ী আসেন নাই, ততক্ষণ গা ধুইয়া ও কাপড়খানা কাচিয়া আসিয়া রান্না চড়াইয়। দিবে। পুকুরের ঘাটে যাইবার সময় দেখিল, বাগানের বেড়ার ওপারে বসিয়া স্বামী কি কাজ করিতেছেন। গা হাত ধুইয়া পুকুর হইতে উঠিবার সময় সে দেখিল স্বামী বেড়ার ধারে নাই, বোধ হয় উঠিয়া বাড়ী গিয়া হাত-পা ধুইতেছেন । বাড়ী আসিয়া দেখিল, দুয়ার যেমন তেমনই তাল লাগানো আছে—স্বামী বাড়ি নাই। ভাবিল বোধ হয় পাড়ায় কোথাও বেড়াইতে গিয়াছেন। জলের ঘড়া দালানের মুখে নামাইয়া সে ঘড়ার জলে হাত-পা ধুইয়া রকে উঠিল— কুলুঙ্গি হইতে চাবি লইয়া ঘর খুলিল, তারপর শুকনা কাপড় পরিয়া প্রদীপ জালিল। জলের ঘড়া বাহির হইতে আনিয়া ভিতর হইতে দালানের দোর বন্ধ করিয়া রান্নাঘরে যাইবে, এমন সময় তাহার ব্রেসলেটের বাক্সের কথা মনে পড়িল । নিমন্ত্রণ খাইয়া আসিয়া ব্রেসলেট খুলিয়৷ কেস-মৃদ্ধ গহনা দালানের উপর রাখিয়াছিল, তুলিয়া রাখিবার জন্য সেখানে গিয়া বীণাপাণি দেখিল—ব্রেসলেটের কেস দালানে নাই! ভাবিল, তবে কি নীচে পড়িয়া গেল ? অালো ধরিয়া দেখিল, সেখানেও নাই ! বীণাপাণির মুখ ভয়ে নীলবর্ণ হইয়া গেল। পরক্ষণেই মনে হইল বোধ হয় স্বামী ঘরে আসিয়া জিনিসটা অসাবধানে পড়িয়া থাকিতে দেখিয়া বাক্সের মধ্যে রাখিয়া দিয়া থাকিবেন । তাহার নিজের তোরঙ্গের চাবি নিজের কাছে—স্বামীর নিজস্ব একটা তোরঙ্গ ছিল, তাহার চাবি ছিল না, সেটা খুলিয়া দেখিল তাহাতেও নাই। এ-কুলুঙ্গি সে-কুলুঙ্গি খুজিল, বাক্সের উপর-নীচে দেখিল, ঘরের কোণে খুজিল—কোথাও নাই। গরিবের গৃহস্থালি, বাক্স-প্যাটরার সংখ্যা অত্যন্ত অল্প । যাহা ছিল তাহার কোথাও ব্রেসলেটের কেস খুজিয়া পাইল না । বীণাপাণি ভয়ে আড়ষ্ট হইয়া উঠিল—তাহা হইলে অন্য কেহ কি ঘরে ঢুকিয়া চুরি করিল ? সে কথা ভাবিতেও পারিতেছিল না—ভাবিতেই তাহার বুক কেমন আড়ষ্ট হইয়া যাইতে লাগিল । 峰 চুরি গিয়াছে এ কথায় আমল না দিয়া সে মনে মনে ভাবিতে লাগিল—তবে কি তাহার স্বামী কৌতুক দেখিবার জন্য গহনার বাক্স লুকাইয়া রাখিয়াছেন ? নিশ্চয় তাই—নতুবা আর কে লইতে পারে? 驗 劇 হরিচরণের সেদিন বাড়ী ফিরিতে বেশ বিলম্ব হইল। সে কোনদিন এত রাত করিয়া ফিরে