পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/৩৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিধু মাষ্টার శ్రీ এর বাসায় পৌছুতেই একদল বালক-বালিকার উল্লাস-সুচক কলরবের মধ্যে ওদের অভ্যর্থনা হোল। মেয়েটির কাক সুধাংশুবাবু প্রতুলকে যথেষ্ট আপ্যায়িত করলেন। প্রতুল তখনই চলে যেতে চাইলে—সে কথাতে তিনি কৰ্ণপাতও করলেন না ; রাত্রে তিনি কোথাও তাকে যেতে দেবেন না, কাল সকলে সে পরামর্শ হবে কথন যাওয়া যায় না যায় । আপাতত হাতমুখ ধুয়ে বিশ্রাম করে একটু চ খেলে তিনি কৃতাৰ্থ হবেন। ইতিমধ্যে বাড়ীর মধ্যে মেয়েটির দ্বারাই রাষ্ট্র হয়ে গেল যে, এই সেই লোক, যার সঙ্গে তার বাক্স-বদল হয়েছিল। এতক্ষণ পৰ্য্যন্ত প্রতুল ছিল মাত্র জনৈক সহৃদয় পথিক ভদ্রলোক, যিনি তাদের অমিয়াকে এক আসতে দেখে দয়া করে তাকে বাসায় পৌছে দেবার কষ্ট স্বীকার করেছেন। কিন্তু এ কথা প্রকাশ হবার পরে প্রতুল বাসামৃদ্ধ সকলের নতুনতর কৌতুহল ও প্রশংসার কেন্দ্র হয়ে উঠল। মেয়েটির কাকা বাড়ীর মধ্যে থেকে এ কথা শুনে এসে তাকে বললেন— • আপনার সম্বন্ধে যে কথা শুনলুম অমির মুখে তাতে আপনাকে আর সাধারণ ভদ্রলোক বলে ভাবতে পারি নে তো । আপনি অতি মহৎ লোক । এভাবে যে আপনার সঙ্গে আলাপ হয়ে যাবে এ ধারণার অতীত। বেশি কিছু আমি আপনার সামনে আপনার সম্বন্ধে বলব না, তবে এইটুকু বলছি যে, আমরা বাসার সকলেই আপনাকে পরমাত্মীয় বলে গণ্য করি প্রতুলবাবু। অমিও বাড়ীর মধ্যে ওর কাকীমার কাছে বলছিল, আপনার সম্বন্ধে ওর যথেষ্ট উচু ধারণা। প্রতুলের মুখ লজ্জায় ও সংকোচে লাল হয়ে উঠল, বিশেষ করে স্বধাংশুবাবুর এই শেষের দিকের উক্তিতে । একটু পরে চা ও খাবারের রেকবি হাতে মেয়েটিই বাইরের ঘরে ঢুকে প্রতুলের সামনে টেবিলের ওপর সেগুলো রেখে বললে,—হাতমুখ ধুয়েছেন ? একটু চা খেয়ে নিন। স্বধাংশুবাবুর হঠাৎ কি-একটা কাজের কথা মনে পড়ে যাওয়াতে তিনি বললেন—অমি, তুই এখানে বস একটু, ওঁকে আর এক পেয়ালা চা এনে দিস, আসছি আমি আধ-ঘণ্টার মধ্যে। সুধাংশুবাবুকে আর বাইরের ঘরে দেখা গেল না । প্রতুল ইতিমধ্যে মেয়েটির সম্বন্ধে অনেক কথা জেনে ফেললে । ওর বাবা-মা নেই, অনেক দিন মারা গেছেন। কাক মানুষ করছেন বহুদিন থেকে। আই-এ-তে মেয়েটি কুড়ি টাকা স্কলারশিপ পেয়েছিল, কলেজে ও ফাইন আর্টস সোসাইটির সেক্রেটারি। কলুেজে গানের প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়ে মেডেল পেয়েছে এ বৎসর। কলেজ ম্যাগাজিনে ওর লেখা ছোট গল্প বেরিয়েছে। বি-এ পাশ করে ওঁ নিশ্চয়ই এম-এ পড়বে, ইত্যাদি ইত্যাদি। মেয়েটি সরাসরি ভাবে এসব সংবাদ প্রতুলকে বলেনি। প্রতুলের প্রশ্নে, কতকটা নিজে থেকে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে এমন ভাবে বলেছিল যে প্রতুলের তথ্যগুলি অজ্ঞাত রইল না আধ-ঘণ্টা সময় শেষ হবার পূৰ্ব্বেই। 鬱 সুধাংশুবাবু পুনরায় বাইরের ঘরে ঢুকতেই অমিয় উঠে চলে গৈল । পরদিন সকালে উঠে