পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/৩৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিধু মাষ্টার રજે এ জ্যোৎস্নায় বেশ লাগবে । আমরা সকলেই হতবুদ্ধি। আম্বাসিরির দিকে যাইতে হইলে আবার পাহাড়ে উঠতে হইবে। বিপদে ফেলিল দেখিতেছি খেয়ালী পাশী মেয়েটা। কি করা যায়, মুন্দরী তরুণীর আবদার উপেক্ষা করিবার সাধ্য নাই আমাদের—মোটর ঘুরাইয়। আবার সবাই পাহাড়ে উঠিয়া আম্বাসিরির দিকে ছুটিলাম। সেখানে লেকের ধারে পার্কে বিভিন্ন বেঞ্চিতে তখনও কেহ কেহ বসিয়া আছে। ক্রমে মুন্দর জ্যোৎস্না উঠিয়া হ্রদের জলে পডিয়া সেদিনকার থিন্‌সি লেকের স্মৃতি মনের মধ্যে আনিয়া দিল। পাহাডের উপর হু হু ঠাণ্ড বাতাসে সমস্ত শরীরে কাপুনি ধরিল । জনবিরল হ্রদ-তীরের পার্কটিতে দূরে দূরে দু-একটি নরনারী বেড়াইতেছে। ঠাণ্ড লাগার ভয়ে সবাই নামিয়া চলিয়া গিয়াছে বলিয়াই তারও চমৎকার লাগিতেছিল, নতুবা সাধারণত আম্বাসিরিতে বিকালের দিকে বড় ভিড় থাকে । মিস সোরাবজিকে বলিলাম—কেমন লাগছে ? সে মেমসাহেবী মুরে সরু মিষ্টি গলায় টানিয়া বলিল—ও, ইট্ৰ’জ ফ-ই-ন ! ‘ফী’ হইতে ন পৰ্য্যস্ত টানিয়া স্বরের নাম-গুঠা করিয়া উচ্চারণ করিতে প্রায় পাঁচ সেকেণ্ড সময় লইয়া মধুর ধরনে গ্ৰীবা বাকাইয়া মৃদু হাসির সঙ্গে কথাটা বলিল। এই তো কলেজের ছাত্রী, কতই বা বয়স, কুডি-একুশের বেশি নয়—এ সব শিথিল কোথা হইতে কে জানে। নবীনদা অন্যদিকে মুখ ফিরাইয়া বাংলায় বলিল—মেয়েটার আবার ভাবন দেখছ ? আমিও বাংলায় বলিলাম—আমেরিকান ফিল্ম থেকে হলিউডের অ্যাকূট্রেসদের মুর নকল করেছে কষ্ট করে । গলা মিষ্টি বলে মানিয়েছে। মূলোর মনে কোনও কবিত্ব নাই। সে দেখিলাম মেয়েটির সহিত স্থতা ও চরকা-কাটা সম্পর্কে কি কথা বলিতেছে । মিস সেরাবত্ত্বি আমার কাছে আসিয়া বলিল,—একটা কবিতা বলতে হবে–বলুন। এমন জায়গায় টাগোরের কবিতা একটি শুনব ! আবৃত্তি করিলাম—কি আর করি। মেয়েটির প্রাণে দেখিলাম সত্যই কবিত্ব আছে। সে উচ্ছ্বসিত হইয়া উঠিল প্রশংসায়। কিছু না বুঝিলেও ভাষার ধ্বনিতে ও ঝংকারে তাহার মন মাতিয়া উঠিয়াছে। সে আমাদের অনুরোধের অপেক্ষ না করিয়া সম্পূর্ণ নিজের ইচ্ছায়" শেলির একটি কবিতা আবৃত্তি করিল। বলিলাম—গান করুন না একটা ! মিস সোরাবজি হাসিয়া বলিল—ইংরিজি গান জানি, আপনাদের পছন্দ হবে না। —ভারতীয় মেয়ে, দিশি গান শেখেননি কেন ? @ —আমাদের কমিউনিটির সাহেবিয়ান এজন্তে দায়ী মিঃ রায় । বাবা গভর্নের্স রেখে ছেলেবেলায় পড়িয়েছেন, গান শিখিয়েছেন—তারা যে পথে নিয়ে গিয়েছে, সেই পথে যেতে হয়েছে আমায়। এখন জ্ঞান হুয়ে সব বুঝতে পারি। এখন আমি গান্ধীবাদী তা জানেন ? খন্ধর পরি অনেক সময়, মা পরতে দেন না—এই হোল কথা। ইচ্ছে হয় আমি শিথি ভারতীয় গান—খুব ভাল লাগে আমার । -