পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/৩৮৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিধু মাষ্টার ዓ› শান্তি হাসিতে হাসিতে বলিল-আচ্ছ, যতীনদী—শিবতলার বটগাছে ভারা বেঁধে দিতে তো ফি বছর পরীক্ষার আগে—খুলেছিলে কোনদিন ? e সত্যিই অনেক কথা দেখিতেছি মনে রাথিয়াছে শান্তি। আমার নিজেরই মনে ছিল না। . মেয়েরা বড় মনে রাখে । রাত অনেক । শাস্তি বলিল—আর না যতীনদী, রাত হয়েছে, শুতে যান। যদিও আমার ইচ্ছে করছে আজ সারারাতটা আপনার সঙ্গে বসে গল্প করি। কাল সকালে উঠেই যেন চলে যাবেন না, খাওয়া-দাওয়া সেরে তবে— —কাল তা কি করে হবে শান্তি । কাল সোমবার, সব খোলা—খেয়ে যেতে গেলে দেরি হয়ে যাবে। আমি সকালে চ খেয়েই চলে যাব । শাস্তি কর্তৃত্বের মুরে বলিল—সে হবে এখন। সেজন্যে আপনার ভাবতে হবে না —কাল সকালে উঠে ছুটে আপিসের ভাত দিতে আমার আর হাত পা খোড হয়ে যাবে না । 輸 * রাত্রে বিছানার শুইয়া শুইয়া ভাবিলাম বাপারখানা। শাস্তিকে প্রতারণা করিলাম বটে, স্বীকার করি সেটা বড়ই খারাপ কাজ, কিন্তু সত্য কথা খুলিয়া বলিলেই কি সে খুশী হইত ? ওর জীবনে হয়তো এইটুকু ভাবিয়াই উহার মুখ—কেন সে স্বথটুকু নষ্ট করিবে ? পরদিন সকালে না খাওয়াইয়া শাস্তি কি ছাড়ে । খুব ভোরে উঠিয়া এটা সেটা রাধিতে বস্ত হইয়া পড়িল । সাড়ে আটটায় আমার গাড়ী। তার অনেক আগে সে আমার চার পীচ রকমের তরকারি করিয়া খাওয়াইয়া দিল । পায়ের ধুলা লইয়া প্রণাম করিয়া বলিল—আবার কবে আসবেন দাদা ? —সময় তো পাই নে। তবে—ইয়ে—আয়ুব বইকি । হঠাৎ খপ করিয়া আমার হাত দুখন তাহার দুই হাতের মধ্যে লইয়া আর্দ্র কণ্ঠে অথচ দৃঢ়স্বরে বলিল –না দাদা, আমি সব জানি, সব বুঝি। আপনি যে নিজের জীবনটা এভাবে কাটিয়ে দিলেন, স্বেজন্তে আমার মনে তুষের আগুন জলে দিন-রাত। আপনার কাছে আমার একটা অনুবোধ আছে, রাখবেন বলুন ? —কি অঙ্গুরোধ বল শান্তি । —আপনি বিয়ে করুন—করতেই হবে আপনাকে বিয়ে। আমার অপরাধুের বোঝা আর বাড়বেন না। বলুন অনুরোধ রাখবেন ? আমি চুপ করিয়া রছিলাম। এ কথার কি উত্তর দিব ভাবিয়া পাইলাম না। • শান্তি আবার বলিল—চুপ করে থাকলে হবে না। আমার কাছে বলে যান। —আচ্ছা, ভেবে দেখি শাস্তি । —বেশ, তা ভাবুল্ল । এইটুকু যে বলেছেন এবার সেই যথেষ্ট। আবার এই মাঘ মাসে সরস্বতী পূজোর সময় আসবেন বলুন ? —আচ্ছা, তা বরং—