পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/৪৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ছায়াছবি ১৩ মাঘমাসে সিতে পক্ষে নবম্যাং কর্কটে শুভে । কৌশল্যা জনয়াগ্রামং বিষ্ণুতুল্যং পরাক্রমং ॥ 彎 শেষ কালে এই তার শুভ জন্মতিথির পরিণাম ? শূদ্ৰ-যাজন তিনি করেন না, এই অপরাধে এই স্বাদের হাতে অপমৃত্যু ছিল তার ললাট-লিপি ? কত দুর্গা-ষষ্ঠীর বোধনে চণ্ডীপাঠের সময় তিনি নিজেই আবৃত্তি করিতেন যজমানের বাড়ী— যা দেবী সর্বভূতেষু মৃত্যুরূপেণ সংস্থিতা— যদি করালবেশিনী নৃমুণ্ডমালিনী, কৃপাণহস্তা সেই দেবীর আবির্ভাব তাহার জীবনে আসন্ন হইয়াই থাকে, তাহাকে তিনি আবাহন করিয়া লইবেন । খোকার মুখ মনে পড়িল । সে আসিবার সময় বলিয়াছিল—বাবা, আমার জন্তে কি আনবে ? —কি আনবো—তুই বল ? —বাসেীতা এনে— অর্থাৎ বাতাসা । {j * কাদম্বিনীকে আর দেখিবেন না, খোকাকে না, শৈল, জবা, মানদাকেও নয় । আবদুল জব্বর আসিয়া রাধারমণ ভট্টাচার্য্যের হাত চাপিয়া ধরিল, আর একজন কালো জোয়ান মত লোক তাহার পা দুইখানা ধরিল এবং তাহাকে চ্যাংদোলা করিয়া বিলের জলের ধারে লইয়া চলিল । তাহার পর একটা উচু ছোট ঢিবির ওপর তাহার গলাটা রাখিল । কে একজন বলিল— গামছা দিয়ে চোখ বেঁধে দাও— ভট্টাচাৰ্য মহাশয়ের গলার পাশে চোরকাটা লাগিয়া কুটকুট করিয়া উঠিল। একবার তিনি ভাবিলেন, চোর কাটার মধ্যে কেন এরা এনে ফেললে ! গামছা দিয়া ততক্ষণ তাহারা তাহার চোখ বাধিয়া ফেলিয়াছে। অন্ধকার...চারিদিকে অন্ধকার-অন্ধকারের মধ্যে শুধু খোকার মুখ দেখা যাইতেছে--- মনে পড়িল ঈশোপনিষদের পুথিখানার নকল করার কাজ এখনো বাকি । —পুথিখানা আর শেষ হলো না । অন্ধকার•••সব অন্ধকার••• কবিরাজের বিপদ চন্দ্রনাথবাবু কবিরাজ এবং শিশির সেন তরুণ ডাক্তার। রামদাসের ছোট্ট বাজার পূর্ববঙ্গ থেকে আগত উদ্বাস্তু ডাঙ্কুর, কবিরাজ, হোমিওপ্যাথে ভর্তি হয়ে গিয়েছে। রোগীর চেয়ে ডাক্তারের সংখ্যা বেশি ! তবে দেশটায় রোগ-বালাই নিতান্ত কমও নয়, তাই সবাই দু-মুঠো তাতের যোগাড করতে পারতে কোনোরকমে। চন্দ্রনাথবাবুর বয়ে পঞ্চান্ধ-ছাপায়, শিশির বি. র ৮ (২)-৮