পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/৪৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ছায়াছবি ২৯ —বল কি ! এ রকম তোমার হয়েচে নাকি কখনো ? —হয় নি স্তার ? কতবার মরতে মরতে বেঁচে গিয়েচি । —আচ্ছ একটা ঘটনা বল দিকি ? বড় ভাল লাগচে তোমার কথা—” —আর একদিন বলবো স্তার, আজ মামা বসে আছেন দাড়ি কামাবেন বলে, আমার মাপিত n ডাকতে পাঠিয়েচেন—বেলা হয়ে যাচ্চে— মধ্যে মাস কয়েক আর ওর সঙ্গে দেখা হয় নি । তারপর একদিন হঠাৎ আমহাস্ট স্ত্রীটের সেই গলির মোড়ে দেখা । আগ্রহের সহিত বুললুম—এই যে সতীশ, করাচী থেকে কবে এলে ? সতীশ আমার পায়ের ধুলো নিয়ে আগে প্রণাম করলে। ভারী বিনয়ী ছোকরা। তারপর বললে—ছুটিতে আছি, স্তার। এরোড্রোমের কাজ ছেড়ে দিলুম করাচী গিয়ে। দেখলুম ও আমাদের পোষায় না। সঙ্গে সঙ্গে বম্বেতে একটা ভাল চাকরি পেয়েও গেলাম কিনা ?—এই রেলে। এই তো মঙ্গলবারে এসেচি ছুটি নিয়ে । আবার সামনের হপ্তাতেই যাবো । বললুম—তা বেশ। কত টাকা মাইনে হোল ? —আজ্ঞে আশি টাকা । —ও তোমার ভালই হয়েচে । —আর স্যার উন্নতিও আছে খুব । আশি থেকে শীগগিরই একশে হবে, দুশে পর্যন্ত গ্রেড"। তবে বড় খাটুনি। সকালে উঠে যাই, আর বেলা বারোট—ওদিকে তিনটে থেকে রাত আটট। তবে উপরি আছে । —কিসের কাজ ? * —আজ্ঞে গুড সের। যত ফরেন পার্শেল—“ তারপর সে পাশেলের কাজের নানা খুটিনাটি বর্ণনা করে গেল। ওদের বড় সাহেব খুব ভালবাসে ওকে । বড় সাহেব একদিন ওকে ডেকে বাড়ির কথা জিজ্ঞেস করেছিল । বাঙালীর খুব খাতির সেখানে, বাঙালী বেশী নেই কিনা ? می এর পরে মাসখানেক ধরে সতীশের সঙ্গে প্রায়ই দেখা হয় । দেখা হোলেই তাকে বোম্বাইয়ের কথা জিজ্ঞেস করি, সেখানে কেমন থাকার সুবিধে ইত্যাদি সম্বন্ধে অনেক কথাই হয় । তারপরে পড়লো পূজোর ছুটি । क्ल .ছুটির পরে এসে মাস দুই পরে আবার সতীশের সঙ্গে দেখা। বললুম—কি হে, আবার ছুটি নিলে নাকি ? —অজ্ঞে হ্যা স্তার, কাল সবে এসেচি, মার অস্থখ কিনা ? আবার যাবে একটু ভাল দেখলেই— இ. মাসখানেক রোজই সতীশকে দেখি । ওর মায়ের অম্বখ নাকি এখনও সারে নি। वि. ब्र ध्र (२)-२