পাতা:বিভূতি রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড).djvu/৪৬০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8& বিভূতি-রচনাবলী ওদের দিকে, ওদের নিয়ে যদি বাধিয়ে দেয় হুড়োহুড়ি-তবে আশ্চর্যের কথাটা এমন কি ? এই আবহাওয়ার মধ্যে আমি ভালোছেলে রূপে ফাস্ট ইয়ারের তিন-চার মাস দিলাম কাটিয়ে । এর মধ্যেই নির্মলাকে নিয়ে ক্লাসে অনেক কিছু হয়ে গিয়েছে। ধনী ছাত্র শশধর মূহুরী নির্মলার সঙ্গে ঘনিষ্ঠত ফরবার চেষ্টা করতে গিয়ে সেই চ্যালেঞ্জপূর্ণ উগ্র দৃষ্টির সামনে এতটুকু হয়ে গিয়েচে । আরও কয়েকটি ছাত্র চোখরাঙানি খয়েচে রীতিমত । অথচ ওরাই মহামায়াকে বা স্বনীতিকে নিয়ে মোটরবিহার করতো, কলেজ বেস্টরেন্টে নিয়ে গিয়ে একসঙ্গে খেতে গেটের কাছে দাড়িয়ে থেকে সঙ্গে করে ট্রামে উঠতো । আমার কি ছিল, ক্লাসে এসে নির্মলার দিকে চেয়ে থাকতাম যখনই স্থবিধা হোত চেয়ে দেখবার । ভয় হোত, বুক টিপ টপ করতে, পাছে নির্মলা কিছু মনে করে । একদিন আমি ওর দিকে চেয়ে আছি, ওর সঙ্গে চোখাচোখি হয়ে গেল। সেও এক অপ্রত্যাশিত ধরনের আশ্চৰ্য্য ব্যাপার । আমি ওর দিকে চাইতে গিয়ে দেখি ও-ও আমার দিকে চেয়ে আছে । আমার আগে থেকেও ও আমার দিকে চেযে আছে । আমার সারা শরীর দিয়ে যেন বিদ্যুৎ খেলে গেল । কেন নির্মলা আমার দিকে চেয়ে আছে ? আমাকে কি ওর ভাল লাগে ? নইলে কেন আমার দিকে চাইলে ও ! আমার চেহারা বলতে সকলে ভালো। চিরকাল শুনে এসেছি এই কথা আত্মীয়-অনাত্মীয় সকলের মুখ থেকে । আয়নায় নিজের চেহারা দেখেও খারাপ মনে হয় নি কোনোদিন । দেখতে ভালো বলে বিয়ের সম্বন্ধও দু-একটি আসতে আরম্ভ করেছিলো বড় ঘর থেকে । আমাদের অবস্থাটাও ভালো, কলকাতায় তিন-চারখানা বাড়ী, ভাড়া থেকে মাসিক আয় হোত মন্দ নয়। ভারপর আমিও স্কলারশিপ পাওয়া ছেলে । পড়াশুনোয় নামকরা ভালো ছেলে । বিয়ের সম্বন্ধ আসবার অপরাধ কি ? একদিনের কথা আমার মনে আছে । শ্রাবণ মাসের দিন। কেমিষ্ট্রি ক্লাস থেকে বেরিয়ে মাঠে নেমেচি, উদেশ্ব কলেজ রেস্টরেন্ট থেকে এক পেয়ালা চ খেয়ে নেবো, এমন সময়ে হঠাৎ আমার পেছনে কে মৃদ্ধস্বরে ভকলে— سسسة بني يحسـصـ আমি চমকে উঠে পেছনে চাইলুম। নির্মল! নির্মলা আমায় ডাকচে ! আমি এদিক ওদিক চেয়ে দেখলাম । না আর কেউ কোনোদিকেই নেই তো ? আমাকেই ডাকচে বটে । আমি বিশ্বয়ের স্বরে বললাম—আমাকে ডাকচেন ।