পাতা:বিভূতি রচনাবলী (একাদশ খণ্ড).djvu/১৬৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


》8 বিভূতি-রচনাবলী সময় যেন তাহার মনে হইল রাস্তার পাশেই গাছের সারির মধ্যে সাদামত কি নড়িতেছে। গাড়োয়ানকে ডাকিয়া চুপিচুপি বলিলেন—কি রে গাছের পাশে ? গাড়োয়ান ভালো করিয়া দেখিয়া বলিল—ও কিছু না বাৰু। আপনি ভয় পাবেন না— এ-পথে গাড়ী চালিয়ে চালিয়ে বুড়ো হয়ে মরতি গ্যালাম, ভয়-ভীত কিছু নেই বাৰু। শুয়ে পড়ন ছইয়ের ভেতর। o কিন্তু গাড়োয়ানের কথায় গদাধরের ভয় গেল না। তিনি ছইয়ের ফাক দিয়া একবার এদিক, একবার ওদিক দেখিতে দেখিতে দূর হইতে সোনামুড়ির ডোমপাড়ার আলো দেখিলেন। আর ভয় নাই, সোনামুড়িতে লোকজনের বাস আছে—মধ্যে একটা বড় মাঠ— তারপরই ঢবঢবির বিল চোখে পড়িবে। সোনামুড়ি গ্রামে ঢুকিতেই দেখা গেল, তাহার কাছারির পিয়াদা মানিক শেখ লণ্ঠন হাতে আসিতেছে তাহাদের আগাইয়া লইতে। মানিক সেলাম করিয়া বলিল–বাৰু আসচেন ? —ষ্ট্য রে•••গোমস্তামশায় কোথায় ? —কাছারিতে বসে আছেন। বাবুর খাওয়ার যোগাড় করতি পাঠালেন মোরে-ছুধের বন্দোবস্ত করতি এয়েলাম ডোমপাড়ায় । —চ গাড়ীর সঙ্গে সঙ্গে । কাছারি পৌঁছিয়া গাড়ী রাখা হইল। গদাধর নামিয়া কাছারির মধ্যে চুকিতেই গোমস্ত৷ গাজুলিমশায় লাফাইয়া উঠিয়া বলিলেন—অম্বিন বাবু, আমুন ! আপনার জন্যে সন্দে থেকে "ব'সে অাছি। এই আসেন, এই আসেন ! বডড দেরি হয়ে গেল বাবুর। খাওয়া দাওয়ার সব ব্যবস্থা-বম্বোবস্ত ক'রে রেখেচি । —নমস্কার গাজুলিমশায়। ভালো আছেন ? —কল্যাণ হোক। বস্বন। ওরে, বাবুর হাত-পা ধোয়ার জল এনে দে বাইরে । গদাধর হাত-মুখ ধুইয়া নিশ্চিন্ত বসিয়া আদায়পত্র সম্বন্ধে জিজ্ঞাসাবাদ করিতে লাগিলেন। রাত বেশি হইল, নিকটেই ব্রাহ্মণপাড়ায় গাঙ্গুলিমশায়ের বাড়ী হইতে খাবার আসিল । আহারাদি সারিয়া শুইবার সময় গদাধর বলিলেন–রাত্রে এখানে মানিক শেখকে থাকতে বলুন গাঙ্গুলিমশায়। একা থাকা, মাঠের মধ্যে কাছারি--- গাজুলিমশায় হাসিয়া বলিলেন—কোনো ভয়-ভীত নেই এখানে। মানিকও থাকবে-এখন —আপনি নিশ্চিন্দি হয়ে শুয়ে পড়ন। গদাধর গৃহস্থ মানুষ। নিজের বাড়ী ছাড়িয়া অন্যত্র শুইতে খুব বেশি অভ্যন্ত নহেন, তাহার কেমন ফাকা-কাকা ঠেকিতে লাগিল। এ-ধরণের ঘরে মানুষ গুইতে পারে ঐ টিনের বেড়ার ফfক দিয়া হিম আলিতেছে দস্তুরমত। অনঙ্গ কাছে নাই। ছেলে-মেয়ের কথা মনে পড়িয়া বিশেষ করিয়া কষ্ট হইতে লাগিল ! অনেকক্ষণ পৰ্য্যস্ত এপাশ ওপাশ করিবার পরে গভীর রাত্রে তক্সাবেশ হইল। শেষরাত্রে আবার ঘুম ভাঙিয়া গেল। কোথায় গুইয়া আছেন ।