পাতা:বিভূতি রচনাবলী (একাদশ খণ্ড).djvu/১৯৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


प्रञ्चाडि ኃዓሳ অনুভূতি এত নূতন যে, তিনি নিজের এই পরিবর্তনে কেমন ভীত হইয়া পড়িলেন। স্বামীকে সিড়িতে উঠিতে দেখিয়া অনঙ্গ বলিল—বাপরে ! এত দেরি করবে তা ভো ব'লে গেলে না—আমি ব'সে-ব’সে ভাবচি । —ভাবার কি দরকার আছে ? ছেলেমানুষ তো নই যে, পথ হারিয়ে স্বাবে ! হঠাৎ সেই অপূৰ্ব্ব অস্থভূতি যেন ধাক্কা খাইয়া চুরমার হইয়া গেল। সাধারণ মানুষের মতই দৈনন্দিন একঘেয়েমি ও বৈচিত্র্যহীনতার মধ্যে গদাধর থাইতে বসিলেন। পরদিন সকালে আটটার পরে গদাধর শোভারাণীর বাড়ী গিয়া কড়া নাড়িলেম । ছোকয় চাকরটি দরজা খুলিয়। তাহাকে দেখিয়া চিনিতে পারিল এবং উপরে লইয়া গিয়া বারাগার বেতের চেয়ারে বসাইয়। বলিল—মাইজি নাইবার ঘরে—আপনি বসুন। একটু পরে ভিজে এলো-চুলের রাশি পিঠে ফেলিয়া সম্ভস্নাত শোভা পিমূলের সাদা লাড়ী পরিয়া ঘরে ঢুকিয়া বলিল—এই যে, এলেচেন ! নমস্কার । খুব সকালেই এসে পড়েচেন । বস্বন, আমি আসচি। শোভা পাশের ঘরে ঢুকিয়া দ্বখানা মাসিকপত্র, একখানা লেটারপ্যাড ও একটা ফাউন্টেন পেন লইয়া ঈজিচেয়ারটিতে আসিয়া বসিল এবং চেয়ারের চওড়া হাতলের উপর সেগুলি রাখিয়া গদাধরের দিকে চাহিয়া বলিল—তারপর ? তার মুখও অন্যান্য দিনের মত উদাসীন অপ্রসন্ন নয়। বেশ প্রফুল্ল। এমন কি, ঈষৎ যুদ্ধ হাসিও যেন কখনো অধরপ্রান্তে আসিতেছে, কখনও মিলাইয়া যাইতেছে ! গদাধর পকেট হইতে চেক-বই বাহির করিতে-করিতে বলিলেন—সেই চেক্‌খানা--- শোভা হাসিমুখে বলিলেন—বস্থন, চা খান, আমি এখনও চা খাই নি। স্নান না ক’রে কিছু থাই না। আপনার তাড়া নেই তো ? —আজ্ঞে না, তাড়া নেই । চা কিন্তু একবার খেয়ে— —সেটা উচিত হয় নি। এখানে যখন সকালে আসছেন। কোনো আপত্তি নেই তো ? গদাধর তটস্থ হইয়। বলিলেন—আজ্ঞে না, আপত্তি কি ? শোভা বলিল—ওরে, নিয়ে আয়, ও লালচাদ ! গদাধর দেখিলেন, এ অন্য-একজন চাকর । শোভারাণীর অবস্থা তাহ হইলে বেশ ভালো। তিন জন চাকর আছে, ঝিও একটা ঘুরিতেছে—ঠাকুর নিশ্চয়ই আছে। 'স্টার’-অভিনেত্রী শোভারাণী নিশ্চয় নিজের হাতে রান্না করেন না ! লালচাদ ট্রেতে কু-পেয়াল চা, আর দুখানা প্লেটে ডিমভাজা, টোস্ট ও দুটি করিয়া কলা লইয়া দুটি টিপয়ে সাজাইয়া দিয়া চলিয়া গেল। শোভা বলিল—স্থন দেয় নি দেখচি। আপনাকেও দেয় নি । জা, এদের নিয়ে— · ७ लांआफैंiा ! ... • বি. র৯ ১১–১২