পাতা:বিভূতি রচনাবলী (একাদশ খণ্ড).djvu/২৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দম্পত্তি ২১৯ শুনচি, আগে চা ক'রে জানি আপনার জন্যে। ভড়মশায় ডাকিয়া বলিলেন—ধ্য বোমা---এই কিছু বিস্কুট আর লেবেঙুল খোকাদের জন্তে•••এটা রাখে । কিছুক্ষণ পরে অনঙ্গ চা আনিয়া রাখিল, তার সঙ্গে একবাটি মুড়ি। সে হঠাৎ বস্ত হরিণীর ন্যায় চঞ্চল ও উত্তেজিত হইয়া উঠিয়াছে—হাতে-পায়ে বল ও মনে নতুন উৎসাহ পাইয়াছে। ভড়মশায় সব বুঝিলেন, বুঝিয়া একমনে চা ও মুড়ি চালাইতে লাগিলেন। —হ্যা, তারপর বলুন ভড়মশায় । —হ্যা, তারপর তো সেই মেসের বাড়ীতে গিয়ে উঠলাম। —মেসের বাড়ীতে উঠলেন কেন ? চেহারার কথা বলছিলেন–মানে, শরীরটা--- —স্বম্বর চেহারা হয়েচে । কলকাতায় থাকা-“তার ওপর আজকাল একটু অবস্থা ফিরতির দিকে যাচ্চে.আষায় বললেন—মানে একটু স্মৃত্তি দেখা দিয়েচে কিনা ! —টাকা দিয়ে এলেন তো ? ভড়মশায় লংক্লথের আধময়লা কোটের স্ববৃহৎ ঝোলা-সদৃশ পকেট হাতড়াইতে হাতড়াইতে বলিলেন—স্থ্য, ভালো কথা—টাকা সব নিলেন না । পঞ্চাশটি নিয়ে বললেন, এখন আর দরকার নেই, বাড়ীতে তো টানাটানি যাচ্চে”-তা—এই সেই বাকি টাকাটা একটা খামের মধ্যে—সামনের হাটে এতে••• কথাটা শুনিয়া অনঙ্গ স্বস্তির নিশ্বাস ফেলিল । স্বামী যখন টাকা ফিরাইয়া দিয়াছেন— তখন নিশ্চয়ই র্তার অবস্থা ভালোর দিকে যাইতেছে । বাচা গেল, লোকে কত কি বলে, তাহা শুনিয়া তাহার যেন পেটের মধ্যে হাত-পা ঢুকিয়া যায়। মা সিদ্ধেশ্বরী মুখ তুলিয়া চাহিয়াছেন এতদিন পরে। সে একটু সলজ-কণ্ঠে বলিল-আচ্ছা, আমাদের–আমার কথা-টথা কিছু—মানে, কেমন আছিটাছি--- 疊 ভড়মশায় তাহার মুখের কথা যেন লুফিয়া লইয়া বলিলেন—ঐ স্থাখো, বুড়োমানুষ বলতে ভুলে গিয়েচি। সে কত কথা অনেকক্ষণ ধ'রে বললেন তোমাদের কথা বৌ-ঠাকরুণ। ८डांभांद्र जब८कe*** —ও ! কি বললেন ? এই কেমন আছি, মানে••• নিজের অজ্ঞাতসারে তাহার কণ্ঠে ঔৎসুক্য ও কৌতুহলের স্বর আসিয়া গেল। ভড়মশায় যুদ্ধ-যুদ্ধ হাসিমুখে বলিলেন—এই সব বললেন—এক ওখানে থেকে মনে শাস্তি নেই তার। অথচ এসময়টা দেশে আসতে গেলে, কাজের ক্ষতি হয়ে যায় কিনা! তোমার কথা কত-ক্ষণ ধ'রে বললেন । আলবার সময় ঐ বিস্কুট লেবেঞ্চুল তো তিনিই কিনে দিলেন । —আপনাকে শেয়াল-জ' ইস্টিশানে উঠিয়ে দিয়ে গেলেন বুঝি r -ৰা, তাই তো। উঠিয়েই তো দিয়ে গেলেম-লেখালেও তোমার কথা---